আদমদীঘিতে বাড়ছে ইংরেজিতে লেখা সাইনবোর্ড

প্রকাশিত : ৮ ফেব্রুয়ারি ২০২২

আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, অনেক ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ড ইংরেজিতে লেখা। উচ্চ আদালতের নির্দেশের প্রায় আট বছর পরও আদমদীঘি উপজেলার বহু  সাইনবোর্ড ও বিলবোর্ড ইংরেজিতে লেখা হচ্ছে। অনেক কেজিস্কুল, কোচিং সেন্টার, প্র্রিক্যাডেট স্কুলগুলির নাম ইরেজিতে। উপজেলার অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানগণ এবং ব্যবসায়ীরা উচ্চ আদালতের বিষয়টির বিষয়ে অবগত নন বলে জানান। আদমদীঘি উপজেলা সদরসহ বিভিন্ন ইউনিয়ন সরজমিনে দেখা গেছে, ইংরেজিতে লেখা সাইনবোর্ড, বিলবোর্ড, নামফলকের ছড়াছড়ি।

বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, দোকানপাট, শিল্প ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের বেশিরভাগ সাইনবোর্ড ইংরেজিতে লেখা। উপজেলার কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের সাথে কথা বলে জানা যায়, অনেকেই জানেন না আদালতের এ রকম আদেশের কথা। কেউ কেউ বলেছেন, তাদের ব্র্যান্ডের নাম ও লগো ইংরেজিতে হওয়ার কারণে তারা ইংিেজতেই সাইনবোর্ড তৈরি করেছেন। উপজেলার কিছু কোচিং সেন্টারের নাম ইংরেজিতে লেখা। উপজেলার প্রায় ১৫টি কোচিং, প্রি-ক্যাডেটসহ কয়েকটি অনুমোদনবিহীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম ইংজেীতে। উল্লেখ্য ২০১৪ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারী হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ এক আদেশে দেশের সব সাইনবোর্ড, বিলবোর্ড, ব্যনার, গাড়ির নম্বর প্লেট, সরকারী দপ্তরের নামফলক এবং গনমাধ্যমে ইংরেজি বিজ্ঞাপন ও মিশ্রভাষার ব্যবহার বন্ধ করতে সরকারকে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়।

সাবেক এমপি ও ভাষা সৈনিক কছিম উদ্দীন আহম্মেদ বলেন, মহান ভাষা আন্দোলন এবং আদালতের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে অবিলম্বে উপজেলার ইংরেজী সাইনবোর্ড বাংলায় লেখা দরকার।

সান্তাহার নাগরিক কমিটির সভাপতি সাবেক অধ্যক্ষ মোসলেম উদ্দীন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহসিন আলী, সান্তাহার প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও সিনিয়র সাংবাদিক গোলাম আম্বিয়া লুলু বলেন, মহান ভাষা আন্দোলনের লক্ষ্যই ছিল সর্বস্তরে বাংলা ভাষার প্রচলন। এ ছাড়া আদালতের রায়ের প্রতি শ্রদ্ধা রাখতে সমস্ত প্রতিষ্ঠানের নাম বাংলায় হওয়া উচিত। এ বিষয়ে তদারকি থাকাও উচিত।

আদমদীঘি উপজেলা ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা মো. জালাল উদ্দীন বলেন, এ বিষয়ে আদালতের সুস্পষ্ট নিষেধাজ্ঞা আছে। কিন্তু অধিকাংশ প্রতিষ্ঠান প্রধান, ব্যবসায়ীরা বিষয়টি জানেন না। আমাদের পক্ষ থেকে বিষয়টি মানুষকে অবগত করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেব।

আদমদীঘি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শ্রাবণী রায় জানান, আদালতের রায়ের প্রতি সবার শ্রদ্ধা জানাতে হবে। যারা এ আদেশ মানবেন না তাদের আমরা অনুরোধ করবো। পরবর্তিতে অনুরোধ উপেক্ষা করলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার পথে যেতে হবে।

আপনার মতামত লিখুন :