ক্যারিয়ারে এমন দশা হয়নি রোনালদোর

প্রকাশিত : ১৮ জুন ২০২০

২০০৩ সাল থেকে পেশাদার ফুটবল খেলছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। দিন যত গড়িয়েছে ততই নিজেকে নিয়ে গেছেন অনন্য উচ্চতায়। বিশ্বফুটবলের মহানায়ক হিসেবে নিজেকে পরিচয় করিয়ে দিতে সক্ষম হয়েছে সি আর সেভেন।

দীর্ঘ ক্যারিয়ারে এবারই প্রথম টানা দুটি ফাইনালে হারতে হলো রোনালদোকে। গেল বছর লাজিওর বিপক্ষে সুপারকোপা ইতালিয়ানার ফাইনালে হারতে হয়েছিল জুভেন্টাসকে। বুধবার রাতে নেপোলির বিপক্ষে হেরে কোপা ইতালিয়ার শিরোপাও হাত ছাড়া করতে হলো মাউরিসিও সারির দলকে।
জুভেন্টাস ছাড়াও স্পোর্টিং সিপি, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও রিয়াল মাদ্রিদ হয়ে খেলেছেন রোনালদো। ঘরোয়া ও মহাদেশীয় লড়াইয়ে অনেকবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন। রানার্স-আপও হয়েছেন। কিন্তু ১৭ বছরের ক্যারিয়ারে কখনওই টানা দুইবার ফাইনালে গিয়ে শিরোপা বঞ্চিত হতে হয়নি ৩৫ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ডকে।
করোনার প্রভাবে ফুটবল বন্ধ ছিল তিন মাস। দীর্ঘ বিরতির পর গেল সপ্তাহে কোপা ইতালিয়ার সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগে ইন্টার মিলানের বিপক্ষে পেনাল্টি মিস করেন রোনালদো। যদিও আগের লেগে এগিয়ে থাকায় ড্র করেও ফাইনাল নিশ্চিত করে তুরিনের দলটি।

অলিম্পিক স্টেডিয়ামে স্টেডিয়ামে ফাইনালে নেমেও ব্যর্থ ছিলেন পর্তুগীজ অধিনায়ক। নির্ধারিত সময়ে তিনটি শট নিলেও বল জালে জড়াতে পারেননি পাঁচবারের ব্যালন ডি’ অর জয়ী। গোল শূন্য ড্রয়ের পর টাইব্রেকারে ম্যাচ গড়ায়। কোচ সারিও ভরসা পাননি রোনালদোর ওপর।
প্রথম দিকের শট তুলতে গিয়ে ব্যর্থ হন আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড পাউলো দিবালা। নেপোলির গোলরক্ষক অ্যালেক্স মেরেত রুখে দেন বলটি। এরপর জুভিদের হয়ে ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার দানিলো বল উড়িয়ে দেন। অন্যদিকে লরেঞ্জো ইনসিনিয়ে, মাতেও পলিতানো, নিকোলা মাকসিমোভিচ ও আরকাদিউস মিলিক নেপোলির হয়ে শুট আউটে সফলতা পান। এতে ষষ্ঠবারের মতো কোপা ইতালিয়ার শিরোপা নিশ্চিত করলো গ্লি আজ্জুরিরা।

আপনার মতামত লিখুন :