করোনা সংকট একরকম শাপেবর সাকিবের জন্য

প্রকাশিত : ১৫ এপ্রিল ২০২০

নভেল করোনাভাইরাস (কভিড-১৯) ঝুঁকিতে একে একে সব সিরিজ স্থগিত হচ্ছে। খেলা কবে ফিরবে তার কোনো নিশ্চয়তা নেই। আর এই সংকট একদিক থেকে শাপেবর সাকিব আল হাসানের জন্য। এতে করে নিষেধাজ্ঞায় থাকা টাইগার তারকার ম্যাচ মিসের সংখ্যাও কমে যাচ্ছে। যদিও খেলায় ফেরার চেয়ে এখন করোনা মোকাবেলায় জোর দিচ্ছেন তিনি।

সাকিব নিষিদ্ধ হন গেল বছরের ২৯ অক্টোবর। আর মাঠে না থাকলেও খবরের শিরোনামে ঠিকই ছিলেন তিনি, এমনকি এখনো আছেন। নতুন নতুন বিজ্ঞাপন এবং রেস্টুরেন্টের প্রচারণা কিংবা সামাজিক কর্মকাণ্ডে যুক্ত আছেন টাইগার পোস্টার বয়। নিষেধাজ্ঞার প্রায় অর্ধেকটা পার হয়ে গেছে। কিন্তু এ সময়ে পরিবার নিয়ে ঘুরে বেড়িয়েছেন ও ফুটবল খেলেছেন এবং নিজে মাঠে গিয়ে দেখেছেন বড় বড় ম্যাচ। আরো ধারালো হয়ে ফেরার তাড়না তো আছেই।

সূচি অনুযায়ী শাস্তির এক বছরে ৩৬টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ মিস করার কথা সাকিবের। করোনাভাইরাসের কারণে সংখ্যাটাও কমে গেছে। এরইমধ্যে ভেস্তে গেছে আয়ারল্যান্ড সফর আর স্থগিত হয়েছে অস্ট্রেলিয়া সিরিজ। জুলাইয়ে শ্রীলঙ্কা সফর, আগস্টে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজও সম্ভব নয় পরিস্থিতির বিবেচনায়। এশিয়া কাপ আর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপও আছে শঙ্কার মুখে। তাই এই সংকট কি তাহলে শাপে বর হলো সাকিবের জন্য?

যুক্তরাষ্ট্রে স্ত্রী-কন্যার সাথে আছেন হোম কোয়ারেন্টিনে। করোনা সংকটে আপাতত মাথায় ক্রিকেট নেই। তবে ঘরে বসেই সাকিব ব্যস্ত ফান্ড গঠনে। সাহস রেখেই কঠিন সময়ে হালকা থাকাই তো চ্যাম্পিয়নের বৈশিষ্ট্য।

ভারত সিরিজ, দুই দফা পাকিস্তান সফর আর জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হোম সিরিজ সেরা অস্ত্রকে ছাড়াই খেলেছে বাংলাদেশ। টিভি পর্দায় চোখ রেখেই আড়ালে সাহস দিয়ে গেছেন। আগামী ২৯ অক্টোবর সাকিবের শেষ হবে নিষেধাজ্ঞা। আর এই নির্ধারিত সময়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হলেও সাকিব কি খেলতে পারবেন? সেই প্রশ্নের উত্তর এখনো অজানা।

যদিও টুর্নামেন্ট পিছিয়ে যায় তাহলে তো ভিন্ন কথা। কিন্তু টি-টোয়েন্টির সেরা তারকাকে নিয়েই অস্ট্রেলিয়া যেতে পারবে বাংলাদেশ।

 

আপনার মতামত লিখুন :