নিজেদের শর্তে অনড় শ্রীলঙ্কা, ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন বাধ্যতামূলক

প্রকাশিত : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে শ্রীলঙ্কা সফরে যেতে হলে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে-ই হবে। শ্রীলঙ্কা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় যে কোয়ারেন্টাইন শর্ত দিয়েছে তা পরিবর্তনের সুযোগ নেই। নিশ্চিত করেছেন শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের চেয়ারম্যান শাম্মি সিলভা।

শ্রীলঙ্কা সরকারের নির্দেশনা, অনুশীলন ছাড়াই ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন করতে হবে সফরকারী দলকে। বিসিবি সর্বোচ্চ ৭ দিনের কোয়ারেন্টাইনে রাজি। কোয়ারেন্টাইন কড়াকড়িতে সফরে যেতে ইচ্ছুক নয় বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের প্রস্তাব না করে দিয়েছে বিসিবি।

যদিও শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের প্রধান শাম্মি সিলভার দাবি, বিসিবির সাথে তাদের ৭ দিনের কোয়ারেন্টাইন নিয়ে কোনো আলোচনা হয়নি। শ্রীলঙ্কার ক্রীড়া দৈনিক আইল্যান্ড ক্রিকেটকে শাম্মি সিলভা বলেন, ‘যদি তাঁরা (বিসিবি) এটি উল্লেখ করে থাকে তবে এটি ভুল। আমি ঠিক বুঝতে পারছি না কেন এক সপ্তাহের কথা বলছে? সাত দিনের কোয়ারেন্টাইন সময়সীমা হবে এমন কোনো আলোচনা বিসিবির সঙ্গে হয়নি। আমরা স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ দ্বারা নির্ধারিত সময়কালের বাইরে যেতে পারি না। নিশ্চিতভাবে বলতে চাই, বাংলাদেশ দলকে এখানে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।’

শাম্মি সিলভা আরো বলেন, ‘এখানে আসার আগেও বাংলাদেশকে কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে এবং কলম্বোতে পৌঁছার পর তাদেরকে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। এ সময়ে সকল খরচ শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বহন করবে।’

এদিকের শ্রীলঙ্কার জাতীয় দৈনিক ডেইলি নিউজকে ক্রিকেট শ্রীলঙ্কার চেয়ারম্যান বলেন, ‘কোয়ারেন্টাইন নিয়ে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের বেশি কিছু করার নেই। যাইহোক, আমরা বিসিবির প্রতিক্রিয়ার অপেক্ষায় থাকব এবং সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতি হবে যদি এবার সফর পিছিয়ে যায় এবং নতুন করে সূচি তৈরি করতে হয়।’

সোমবার মিরপুরে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান বলেন, ‘আমরা আইসিসির টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ খেলতে যাচ্ছি। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ কোনো ছেলেখেলা না। কিন্তু ওদের এবং আমাদের মধ্যে বিরাট চিন্তার পার্থক্য। সব দিক বিবেচনা করে বুঝলাম এখন ওখানে যাওয়া কোনো ভাবে সম্ভব না। যে টার্মস অ্যান্ড কন্ডিশন শ্রীলঙ্কা দিয়েছে তা ইতিহাসে বিরল।’

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের তিন টেস্ট খেলতে ২৭ সেপ্টেম্বর শ্রীলঙ্কায় যাওয়ার সূচি রয়েছে বাংলাদেশের। ২৪ অক্টোবর শুরু হবে টেস্ট সিরিজ।

আপনার মতামত লিখুন :