গোপালগঞ্জে এলজিইডির তত্ত্বাবধানে সদ্যনির্মিত মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন হস্তান্তর

  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৬:০৩ পিএম, ১৫ জুলাই ২০২০

কে এম সাইফুর রহমান, গোপালগঞ্জ : মহান মুক্তিযুদ্ধ ও জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতিকে আগামী প্রজন্মের নিকট চির অম্লান রাখতে বর্তমান সরকার ও স্বাধীনতার স্বপক্ষের দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উদ্যোগে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) -এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে দেশের সকল উপজেলায় বহুতল বিশিষ্ট অত্যাধুনিক মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স নির্মাণের পরিকল্পনা গ্রহণ করেন। এরই ধারাবাহিকতায় গোপালগঞ্জে শেখ কামাল স্টেডিয়াম ও স্বাধীনতা স্তম্ভের বিপরীত পাশে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করেছে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি)।

বুধবার (১৫ জুলাই) দুপুর ১২টায় গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা প্রকৌশলী এস.এম.জাহিদুল ইসলাম সদ্যনির্মিত উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনটি নির্বাহী কর্মকর্তা মো.সাদিকুর রহমান খানের নিকট আনুষ্ঠানিক ভাবে হস্তান্তর করেন।

এ সময় সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ লুৎফার রহমান বাচ্চু, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর, গোপালগঞ্জের নির্বাহী প্রকৌশলী মো.এহসানুল হক, সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো.মনোয়ার হোসেন, সদর উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম মিটু, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা সুলতানা জাহিদ পারভিন, গোপালগঞ্জ জেলা মুক্তিযোদ্ধার সাবেক কমান্ডার এম.বদরুদ্দোজা বদর, উপজেলার সাবেক কমান্ডার আবুল কালাম আজাদ, উপ-সহকারী প্রকৌশলী মঞ্জুর রহমান, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার ও ভবন নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী মো.আলী আসগর সহ সম্মানিত মুক্তিযোদ্ধাগণ উপস্থিত ছিলেন।

মোট দুই কোটি পাঁচ লক্ষ বাষট্টি হাজার সাতশত ঊনিশ দশমিক চুয়াল্লিশ টাকা ব্যয়ে আধুনিক সকল সুযোগ-সুবিধার পাশাপাশি উন্নত মানের জেনারেটর সহ তিনতলা বিশিষ্ট ভবনের দ্বিতীয় তলা পর্যন্ত বাণিজ্যিকভাবে ব্যবহার উপযোগী করে তৈরি এবং তৃতীয় তলায় সম্মানিত মুক্তিযোদ্ধাদের কনফারেন্স রুম সহ নামাজের নির্ধারিত স্থান রেখে সঠিক ও গুণগত মান নিশ্চিত করে এই ভবনের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। ভবন হস্তান্তর অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত মুক্তিযোদ্ধাগণ ভবনটির নির্মাণ শৈলী দেখে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মো. আব্দুর রশিদ খান ও প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী মো.আব্দুল হাকিমের প্রতি ধন্যবাদ জানান।

সদ্যনির্মিত মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন হস্তান্তরের পর ভবনের সম্মুখে স্থাপিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে সকলে সম্মিলিত ভাবে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর উপস্থিত সকলে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রুহের মাগফেরাত কামনা সহ বঙ্গবন্ধু’র সুযোগ্য কন্যা, বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, জননেত্রী শেখ হাসিনা’র সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনায় বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করেন।