করোনায় মৃতের সংখ্যা ১ লক্ষ ২৬ হাজারের বেশি, সংখ্যায় এগিয়ে যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত : ১৫ এপ্রিল ২০২০

বিশ্বে প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাসে (কভিড-১৯) এ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে এক লক্ষ ২৬ হাজার ৭০৮ জনে এবং আক্রান্তের সংখ্যা ১৯ লাখ ৯৯ হাজার ১৯ জন। অপরদিকে ৪ লাখ ৭৮ হাজার ৯৩২ জন চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

ওয়ার্ল্ডোমিটার তথ্য অনুযায়ী, চীন থেকে এই মহামারি শুরু হলেও এখন ইউরোপ এবং যুক্তরাষ্ট্রে আরও ভয়াবহ আকার নিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে আবারো বেড়েছে মৃতের হার। গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ২ হাজার ১২৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশটিতে একদিনে এটাই সর্বোচ্চ মৃত্যুর সংখ্যা। যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ২৬ হাজার ৪৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর আগে একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ২ হাজার ৭৪। গত ১০ এপ্রিল একদিনেই সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড ছিল। দেশটিতে ৬ লাখ ১৩ হাজার ৮৮৬ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। অপরদিকে ইতোমধ্যেই সুস্থ হয়ে উঠেছে ৩৮ হাজার ৮২০ জন। তবে ১৩ হাজার ৪৭৩ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

আক্রান্তের দিক দিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে স্পেন। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৩৯৬১ জন। নতুন করে মৃত্যু হয়েছে ৪৯৯ জন। সেখানে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৭৪ হাজার ৬০ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১৮ হাজার ২৫৫ জনের। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৬৭ হাজার ৫০৪ জন।

আক্রান্তের দিক দিয়ে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ইতালি। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ২৯৭২ জন। নতুন করে মৃত্যু হয়েছে ৬০২ জন। সেখানে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৬২ হাজার ৪৮৮ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২১ হাজার ৬৭ জনের। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৩৭ হাজার ১৩০ জন।

এছাড়া গত ২৪ ২৪ ঘণ্টায় যুক্তরাজ্যে ৭৭৮ জন, ফ্রান্সে ৭৬২ জন, জার্মানিতে ৩০১ জন মারা গেছেন।

মিসিসিপি রাজ্যের স্কুল কলেজ সারা বছর বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে সেখানকার গভর্নর। উগান্ডায় মে ৫ পর্যন্ত লকডাউনের মেয়াদ বাড়িয়েছে দেশটির প্রেসিডেন্ট।

ব্রাজিলের রাজধানী রিও ডি জেনেরিওর গভর্নরের দেহে করোনা শনাক্ত করা হয়েছে। অস্ট্রিয়ায় খুলে দেয়া হয়েছে কয়েক হাজার দোকান পাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। পাকিস্তানে দুই সপ্তাহ লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানো হলেও তালিকাভুক্ত কিছু শিল্পখাত খুলে দিয়েছে।

ভারতের পুনের বেশ কিছু এলাকায় কার্ফিউ জারি করা হয়েছে। বিশ্বব্যাপী সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৪ লাখ ৭৮ হাজারের বেশি।

দেশে একদিনে মৃত্যু ও আক্রান্ত- দুই সংখ্যাতেই রেকর্ড ছাড়ালো। ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৭ জন। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৪৬, আর এক হাজার ৯০৫টি নমুনা পরীক্ষায় নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ২০৯ জন। এ পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ১২ জন।
 

আপনার মতামত লিখুন :