ভারতে দৈনিক শনাক্ত প্রায় ২ লাখ, দিল্লিতে বন্ধ বেসরকারি অফিস

প্রকাশিত : ১২ জানুয়ারি ২০২২

ভোরের দর্পণ ডেস্ক:

করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনের দাপটে ভারতে দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা প্রায় দুই লাখ। গত ২৪ ঘণ্টায় মোট ১ লাখ ৯৪ হাজার ৭২০ জন নতুন কোভিড রোগী শনাক্ত হয়েছে। 

দেশটির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় আজ বুধবার (১২ জানুয়ারি) এ তথ্য জানিয়েছে।

ভারতে যতজনের করোনা পরীক্ষা হচ্ছে, তার মধ্যে ১১.৫ জনের রিপোর্ট পজিটিভ আসছে। আগের দিনের তুলনায় বুধবার করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১৫ শতাংশেরও বেশি।

এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব সবকটি রাজ্যকে লিখেছেন, তাদের কাছে যেন যথেষ্ট পরিমাণে অক্সিজেন থাকে। যদিও ভারতে তৃতীয় ঢেউতে যে করোনা হচ্ছে, তা দ্বিতীয় ঢেউয়ের মতো মারাত্মক নয়। কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকার কোনও ঝুঁকি নিতে চাইছে না। তারা সব ধরনের অবস্থার জন্য প্রস্তুত থাকতে চাইছে।

সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ হচ্ছে মহারাষ্ট্রে, দুই নম্বরে আছে দিল্লি ও তিন নম্বরে পশ্চিমবঙ্গ। দিল্লিতে সপ্তাহান্তে পুরো কারফিউ করে রাখা হয়েছিল। তারপরেও করোনা বাড়তে থাকায় এখন বেসরকারি অফিস বন্ধ করে রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বেসরকারি অফিসের কর্মীরা বাড়ি থেকে কাজ করবেন।

রেস্তোরাঁ ও পাবও বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তবে রেস্তোরাঁ থেকে হোম ডেলিভারি চালু থাকবে। জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত বেসরকারি সংস্থা খোলা থাকবে। আগেই জিম, স্পা, সুইমিং পুল, স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছিল।

এদিকে মুম্বাইতে করোনা কমছে বলে সরকারের দাবি। আগে যাদের করোনা পরীক্ষা করা হচ্ছিল, তাদের ১০০ জনের মধ্যে ২৮ জনের রিপোর্ট পজিটিভ আসছিল। এখন তা কমে দাঁড়িয়েছে ১৮ দশমিক সাত জনে। মুম্বাইতে পরপর চারদিন করোনার হার কমলো।

ভারতে শনাক্ত রোগীদের মধ্যে যাদের নমুনা থেকে ভাইরাসের জিনোম সিকোয়েন্স করা হয়েছে, তাদের ৪ হাজার ৮৬৮ জনের মধ্যে ওমিক্রনের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এর মধ্যে কেবল মহারাষ্ট্রেই পাওয়া গেছে ১ হাজার ২৮১ ওমিক্রনের রোগী, রাজস্থানে শনাক্ত হয়েছে ৬৪৫ জন।

আপনার মতামত লিখুন :