হংকংয়ে কার্যালয় বন্ধ করছে অ্যামনেস্টি 

প্রকাশিত : ২৫ অক্টোবর ২০২১

জাতীয় নিরাপত্তা আইন কার্যকরের জেরে চীনের বেয়াড়া অঞ্চল হংকংয়ে নিজেদের কার্যালয় বন্ধ করছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। লন্ডনভিত্তিক এই মানবাধিকার সংগঠন বলছে, চীনের আরোপিত জাতীয় নিরাপত্তা আইন সেখানে তাদের কার্যক্রম কার্যকরভাবে পরিচালনা অসম্ভব করে তুলেছে।

গত ৪০ বছরের বেশি সময় ধরে হংকংয়ে নিজেদের কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে অ্যামনেস্টি। বর্তমানে সেখানে তাদের দু’টি কার্যালয় রয়েছে। এর মধ্যে একটি হংকংয়ের অভ্যন্তরীণ এবং অন্যটি বৃহৎ অঞ্চলের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে কাজ করছে।

স্থানীয় কার্যালয়টি আগামী ৩১ অক্টোবর বন্ধ করে দেওয়া হবে। এছাড়া আঞ্চলিক কার্যালয়টি চলতি বছরের শেষের দিকে সেখান থেকে সরিয়ে নেওয়া হবে।

হংকংয়ে আরোপিত চীনের নতুন জাতীয় নিরাপত্তা আইনে বিচ্ছিন্নতা, সহিংসতা এবং বিদেশি শক্তির সাথে গোপন আঁতাতকে অপরাধ হিসেবে বিবেচনা করা হয়। কিন্তু সমালোচকরা বলছেন, এই আইনের উদ্দেশ্য ভিন্নমত দমন। তবে চীন বলছে, সেখানকার স্থিতিশীলতা রক্ষায় নতুন আইন করা হয়েছে।

অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের পরিচালনা বোর্ডের চেয়ারম্যান আনঝুলা মিয়া সিং বাইস এক বিবৃতিতে বলেছেন, এই আইনের আওতায় নিরাপত্তা বাহিনীর কঠোর অভিযানের মুখে চলতি বছরে হংকংয়ের কমপক্ষে ৩৫টি সংগঠন তাদের কার্যক্রম গুঁটিয়ে নিয়েছে।

তিনি বলেন, হংকংয়ের জাতীয় নিরাপত্তা আইনের কারণেই ভারাক্রান্ত হৃদয়ে আমাদের কার্যক্রম বন্ধের এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। স্বাধীনভাবে এবং গুরুতর প্রতিশোধের ভয় ছাড়াই হংকংয়ে মানবাধিকার সংগঠনগুলোর কার্যক্রম পরিচালনা একেবারে অসম্ভব হয়ে পড়েছে।

জাতীয় নিরাপত্তা আইনের কারণে হংকংয়ে দমন-পীড়নের পরিবেশ এবং স্থায়ী অনিশ্চয়তা তৈরি হওয়ায় সেখানে কোন ধরনের কার্যক্রম ফৌজদারি নিষেধাজ্ঞার দিকে নিয়ে যেতে পারে তা জানা অসম্ভব। চলতি বছরে যেসব সংগঠন তাদের কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে, তার মধ্যে আছে হংকংয়ের প্রথম সারির কিছু ট্রেড ইউনিয়ন, এনজিও এবং পেশাদার কয়েকটি সংগঠন।

সূত্র: বিবিসি।

আপনার মতামত লিখুন :