শপথ নেওয়ার আগেই ১ ট্রিলিয়ন ডলারের প্রণোদনা ঘোষণা বাইডেনের

প্রকাশিত : ১০ জানুয়ারি ২০২১

ভোরের দর্পণ ডেস্ক:

অর্থনীতিতে স্বস্তি আনতে শপথ নেওয়ার আগেই ১ ট্রিলিয়ন ডলারের প্রণোদনা ঘোষণা করলেন নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। আগামী সপ্তাহেই বিস্তারিত জানানো হবে প্রণোদনা পরিকল্পনার বিষয়ে। করোনা মহামারির কারণে গত বছরের ডিসেম্বরেও টানা ৮ মানের মতো দেশটিতে লাখো মানুষ বেকার হয়েছেন। বন্ধ হয়ে গেছে রেস্টুরেন্টসহ অনেক ব্যবসা।

 

নির্বাচনী প্রচারণা অনুযায়ী, বাইডেন ঘণ্টায় মার্কিনিদের মজুরি ১৫ ডলার নিশ্চিত করতে চান। সঙ্গে বেকার এবং তাদের পরিবারকে ২ হাজার ডলার করে ভাতা দেবেন বাইডেন। কারণ তার কাছে মনে হয়, রিপাবলিকানদের নির্ধারিত ৬০০ ডলার দিয়ে মহামারির সময় কিছুই হয় না। কারণ মার্কিনিদের থাকার জায়গা, খাবার, বিদ্যুৎ, পানির সরবরাহ নিশ্চিত করতে হবে। বাইডেন জানান, তাদেরও সাহায্য করা হবে, যাদের চাকরি নেই, বাড়িভাড়া দিতে পারছেন না।

সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ক্ষতি বাড়ার আগে দ্রুতই প্রণোদনার সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

২০ জানুয়ারি ক্ষমতা গ্রহণের আগেই এ সপ্তাহের বৃহস্পতিবার পুরো পরিকল্পনার বিস্তারিত জনসম্মুখে আনবেন তিনি। মার্কিনিদের লাইন ধরে বেকার ভাতা নিতে আর খাবারের জন্য অপেক্ষা করার ছবি দেখে হতাশা প্রকাশ করে ট্রাম্প বলেন, এখনই যদি কোনো পদক্ষেপ নেওয়া না যায়, তাহলে পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ হবে, যেখান থেকে বের হওয়া আরো কঠিন হবে।

মহামারির প্রকোপে রেস্টুরেন্ট ব্যবসায় ধস নামায় বেকার হয়েছেন লাখ লাখ মানুষ। ডিসেম্বরে দেশটির বেকারত্ব হার এসেছে ৬ দশমিক ৭ শতাংশে। মহামারি মোকাবিলায় মার্চে ট্রাম্প সরকারের ঘোষণা করা ২ ট্রিলিয়ন ডলারের পরিকল্পনা দৃশ্যত কোতো কাজেই আসেনি। ডিসেম্বরেও ৯০ হাজার কোটি ডলারের একটি প্রণোদনা পরিকল্পনা বিল অনুমোদন দেন ট্রাম্প। এ বিলের উদ্দেশ্য ছিল বেকারদের সহায়তা করা। কিন্তু সরকারি কর্মকর্তাদের জন্য কোনো নির্দেশনা ছিল না এই প্যাকেজে।

ডিসেম্বরে দেশটিতে নতুন করে আরো এক লাখ ৪০ হাজার মানুষ বেকার হয়েছেন। এটাই প্রমাণ করে যে, আমেরিকার এখন মহামারি মোকাবিলার পাশাপাশি অর্থনীতিতে বিপর্যয় রোধে আর বাজেট ঘাটতি কমাতে দ্রুতই পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি। প্রথমেই সুবিধাবঞ্চিত পরিবারকে সহায়তা করতে হবে, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের সহায়তা করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :