করোনা: চীনের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রে মামলা

প্রকাশিত : ২২ এপ্রিল ২০২০

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে যথেষ্ট পদক্ষেপ না নেওয়া এবং অতি সংক্রামক এই রোগ নিয়ে মিথ্যা বলার অভিযোগ তুলে চীন সরকার ও দেশটির ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রে মামলা হয়েছে। মামলাটি করেছে যুক্তরাষ্ট্রের মিসৌরি অঙ্গরাজ্য সরকার। খবর সিএনএন ও গার্ডিয়ান।

বৈশ্বিক মহামারি হিসেবে করোনার বিস্তার লাভ করার নেপথ্যে চীনের দায়িত্বে অবহেলাকে কারণ হিসেবে হাজির করেছে মিসৌরি সরকার। বলা হচ্ছে, চীন ভাইরাসটি নিয়ে লুকোচুরি করেছে। এই ভাইরাস যে এতটা সংক্রামক তা তারা আগে জানায়নি। এ নিয়ে তথ্য গোপন করেছে দেশটির ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট সরকার।

মিসৌরির অ্যাটর্নি জেনারেল এরিক স্মিথ সরকারের পক্ষে এই মামলা করে বলেছেন, ‘চীন সরকার কোভিড -১৯ এর বিপদ ও এর অতি-সংক্রামক প্রকৃতির বিষয়ে বিশ্বকে মিথ্যা বলেছিল। এছাড়া প্রথম যে চিকিৎসক এই ভাইরাস সম্পর্কে সচেতন করে তারও মুখ বন্ধ করে দেওয়া হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘সব দিক দিয়েই চীন মহামারি এই রোগের বিস্তার থামাতে খুব কমই চেষ্টা করেছে। আর তাদের এই কারণে অবশ্য জবাবদিহি করতে হবে। মিসৌরিয়ানসহ বিশ্বের ওপর এখন যে বিরাট মৃত্যু, যন্ত্রণা ও অর্থনৈতিক ক্ষতি সাধিত হচ্ছে তার জন্য চীন দায়ী।’

রিপাবলিকান অ্যাটর্নি জেনারেল এরিক স্মিথ এক লিখিত বিবৃতিতে বলেছেন, ‘চীন ভাইরাসটির ঝুঁকি সম্পর্কে মিথ্যা বলেছে এবং এর বিস্তার ঠেকাতে যথেষ্ট কিছু করেনি।’ তবে মিসৌরি ডেমোক্র্যাটিক পার্টির নির্বাহী পরিচালক লরেন জিপফোর্ড এই মামলাটিকে ‘চাল’ হিসেবে অভিহিত করেছেন।

তবে এই মামলা খুব বেশি প্রভাব ফেলবে কিনা তা স্পষ্ট নয়। কারণ মার্কিন আইনে কিছু ব্যতিক্রম ছাড়া সাধারণত অন্য দেশের বিরুদ্ধে মামলার বিষয়টি নিষিদ্ধ করে। এমনটাই জানিয়েছেন ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের হ্যাস্টিংস কলেজ অফ ল এর আন্তর্জাতিক আইন বিভাগের অধ্যাপক চিমেন কেটনার।

যুক্তরাষ্ট্রের জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর সিস্টেমস সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের দেওয়া হিসাব অনুযায়ী, স্থানীয় সময় মঙ্গলবার পর্যন্ত মিসৌরি অঙ্গরাজ্যে করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন ২১৫ জন। গত একদিনে নতুন শনাক্ত ১৫৬ নিয়ে সেখানে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা এখন ৫ হাজার ৯৬৩।

জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গোটা যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৮ লাখ ২৪ হাজার ৪৩৮। অপরদিকে দেশটিতে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে মৃত্যু হয়েছে ৪৫ হাজার ৩৯ জনের। মঙ্গলবার দেশটিতে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ৩৭ হাজার ১৭৯। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছে ২ হাজার ৭৩১ জন।

আপনার মতামত লিখুন :