বিএসএমএমইউয়ের হেল্পলাইনে ফোন করেই নিতে পারবেন সেবা

প্রকাশিত : ২ এপ্রিল ২০২০

রোগীদের সুবিধার্থে ও করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতা‌লের বিভিন্ন বিভাগে হেল্পলাইন চালু করা হয়েছে। করোনাভাইরাস ছাড়া অন্য রোগীরা জরুরি প্রয়োজনে সকাল সাড়ে ৮টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত এসব হেল্পলাইনে ফোন করে সেবা নিতে পারবেন। রোগীরা যাতে হাসপাতালে না এসেও চিকিৎসাসেবা নিতে পারেন সেজন্য এই ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে।  

হেল্পলাইনগুলো হলো- 
মেডিসিন বিভাগ

০১৪০৬-৪২৬৪৩৭, ০১৪০৬-৪২৬৪৩৮

সার্জারি বিভাগ

০১৪০৬-৪২৬৪৩৯

নাক, কান, গলা বিভাগ

০১৪০৬-৪২৬৪৪০

বক্ষব্যাধি

০১৪০৬-৪২৬৪৪১

অবস অ্যান্ড গাইনি

০১৪০৬-৪২৬৪৪২

শিশু বিভাগ

০১৯৮৪-৫১৯৫২৫, ০১৯৫১-৮২০৮৪৩

এর মধ্যে শিশু বিভাগে গত দু’ সপ্তাহ ধরে হেল্পলাইনের মাধ্যমে রোগীদের সেবা দেয়া হচ্ছে। 

বহির্বিভাগের চিকিৎসাসেবা কার্যক্রম

বিএসএমএমইউ হাসপাতালের বহির্বিভাগে ইন্টার মেডিসিন বিভাগ, জেনারেল অবস অ্যন্ড গাইনি বিভাগ, জেনারেল পেডিয়াট্রিক্স (শিশু) বিভাগ, জেনারেল সার্জারি বিভাগ ও ডেন্টালের সব বিভাগের চিকিৎসাসেবা কার্যক্রম অব্যাহত আছে। অন্য সব বিভাগে গুরুতর অসুস্থ রোগীদের জন্য জরুরি চিকিৎসাসেবা কার্যক্রম চালু রয়েছে। সকাল ৮টা থেকে দুপুর ২টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত রোগীরা এই সেবা গ্রহণ করতে পারবেন।

জ্বর সর্দি হাঁচি কাশির রোগীদের জন্য বেতার ভবনে পৃথক স্বাস্থ্যসেবার ব্যবস্থা

জ্বর, সর্দি, হাঁচি-কাশির রোগীদের জন্য শাহবাগে বাংলাদেশ বেতার ভবনের নিচতলায় ‘ফিভার ক্লিনিক’ চালুর মাধ্যমে পৃথক স্বাস্থ্যসেবার ব্যবস্থা করা হয়েছে। সেখানে বিএসএমএমইউ হাসপাতালের চিকিৎসকরা সমন্বিতভাবে চিকিৎসাসেবা দিচ্ছেন। সকাল ৮টা থেকে দুপুর ২টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত এ ধরনের রোগীরা ফিভার ক্লিনিকে চিকিৎসাসেবা নিচ্ছেন।

জরুরি বিভাগের কার্যক্রম অব্যাহত

বিএসএমএমইউয়ের নিউরোসার্জারি বিভাগ, অর্থোপেডিক সার্জারি বিভাগ, কার্ডিওলজি বিভাগ, অবস অ্যান্ড গাইনি বিভাগ, নবজাতক বিভাগে বিদম্যান জরুরি চিকিৎসাসেবা আগের ন্যায় অব্যাহত রয়েছে।

করোনাভাইরাস পরীক্ষার ল্যাব পরিদর্শন

২৯ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া বাংলাদেশ বেতার ভবনের দ্বিতীয় তলায় করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) পরীক্ষার জন্য ল্যাব প্রতিষ্ঠার কার্যক্রম পরিদর্শন করেন। তিনি সংশ্লিষ্টদের প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা দেন। এ ছাড়া তিনি বেতার ভবনের নিচতলায় জ্বর, সর্দি, হাঁচি-কাশির রোগীদের চিকিৎসাসেবার জন্য স্থাপিত ফিভার ক্লিনিকের চিকিৎসাসেবা কার্যক্রম দেখেন। তখন বিএসএমএমইউয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. সাহানা আখতার রহমান, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. মুহাম্মদ রফিকুল আলম, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আতিকুর রহমান, প্রক্টর অধ্যাপক ডা. সৈয়দ মোজাফফর আহমেদ, পরিচালক (হাসপাতাল) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে মাহবুবুল হক, ভাইরোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. সাইফ উল্লাহ মুন্সী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত লিখুন :