ওমর সানী: আমাদের এখন মনোমালিন্য চলছে

প্রকাশিত : ১৩ জুন ২০২২
মৌসুমী-ওমর সানী দম্পতি সংগৃহীত

ভোরের দর্পণ ডেস্কঃ মৌসুমী জায়েদ খানের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ নাকচ করে দিলেও নিজের অবস্থান থেকে এক চুলও সরবেন না বলে জানিয়েছেন ওমর সানী।

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সদস্য জায়েদ খানের বিরুদ্ধে সংসারে ভাঙন ধরানোর অভিযোগ এনেছেন এক সময়ের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ওমর সানী। তবে তার স্ত্রী চিত্রনায়িকা মৌসুমীর দাবি, এ অভিযোগ ভিত্তিহীন। বরং জায়েদ খান তাকে যথেষ্ট সম্মান করেন এবং সে একজন ভালো ছেলে। মৌসুমী জায়েদ খানের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ নাকচ করে দিলেও তাকে দোষারোপ করতে নারাজ ওমর সানী। স্ত্রীর এমন মন্তব্যের পরেও জায়েদ খানের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগে নিজের অবস্থান থেকে এক চুলও সরবেন না বলে জানিয়েছেন তিনি। সানী বলেন, “সে আমার সন্তানের মা, তার প্রতি আমার সম্মান আছে। কিন্তু আমার কাছে সব তথ্য-প্রমাণ আছে, আমার ছেলে তা দেখাবে আপনাদের। আমাদের এখন মনোমালিন্য চলছে।”

সোমবার (১৩ জুন) অনলাইন সংবাদমাধ্যম ঢাকা পোস্টের এক প্রতিবেদনে এ কথা জানা যায়।

ওমর সানী বলেন, “আমি জায়েদ খান সম্পর্কে যে কথাগুলো বলেছি সেখানে অটল আছি। জায়েদ খান সম্পর্কে পুরো ইন্ডাস্ট্রি যা জানে সেই বিষয়গুলো সম্পর্কে আপনারাও ভালো করে জানেন। ইন্ডাস্ট্রি, ইন্ডাস্ট্রির মানুষগুলো এটার উত্তর দেবে।”

স্ত্রী মৌসুমীর মন্তব্যের বিষয়ে তিনি বলেন, “আমি মৌসুমীকে বাজে কোনো কথা বলব না। সে আমার স্ত্রী। সে একজন গর্জিয়াস নারী। কোনো কারণেই তাকে আমি ব্লেইম দেবো না। সে কী ভেবে কী কারণে কথাগুলো (অডিওবার্তা) বলেছে এটা একমাত্র সে আর তার আল্লাহ জানে।”

ওমর সানী আরও বলেন, “সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে আমার ছেলে বড় হয়েছে। তার একটি স্ত্রী আছে। আমরা ৫ জনের সংসার। সমস্ত কিছু, জায়েদ খানের গাড়ির বিষয়ে আমাদের কাছে বেশ ভালো প্রমাণ আছে। সেটা আমরা চাচ্ছিলাম বলতে। সব পরিবারেই দাম্পত্য কলহ অল্পস্বল্প থাকে। আমরা চাচ্ছিলাম নিজেরা নিজেরা এটা মিটমাট করতে। সেদিন এটা এত নিয়ন্ত্রণে চলে গিয়েছিল যে আমি নিজেকে ধরে রাখতে পারিনি।”

তিনি বলেন, “সে আমার সন্তানের মা, তার প্রতি আমার সম্মান আছে। কিন্তু আমার কাছে সব তথ্য-প্রমাণ আছে, আমার ছেলে তা দেখাবে আপনাদের। আমাদের এখন মনোমালিন্য চলছে।”

প্রসঙ্গত, শুক্রবার ঢাকার একটি কনভেনশন সেন্টারে অভিনেতা ডিপজলের ছেলের বিবাহোত্তর সংবর্ধনার অনুষ্ঠানে চিত্রনায়ক জায়েদ খানকে অভিনেতা ওমর সানী চড় মেরেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ সময় জায়েদ খানও পিস্তল বের করে ওমর সানীকে গুলি করার হুমকি দেন বলেও জানা যায়।

ওমর সানীর দাবি, তার স্ত্রী চিত্রনায়িকা চিত্রনায়িকা মৌসুমীকে বিরক্ত করায় তিনি জায়েদ খানকে চড় মেরেছেন। তবে জায়েদ খান প্রথম থেকেই চড় দেওয়ার মতো ঘটনা ঘটেনি বলে দাবি করে আসছিলেন। এমনকি, তার সঙ্গে পিস্তল ছিল না বলেও জানান এ অভিনেতা।

পরবর্তীতে রবিবার  জায়েদ খানের বিরুদ্ধে রবিবার বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতিতে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ওমর সানী। অভিযোগে তিনি জায়েদ খানের বিরুদ্ধে তার স্ত্রী এবং চিত্রনায়িকা মৌসুমীকে হয়রানি ও বিরক্ত করার অভিযোগ আনেন। এমনকি, জায়েদ খান তাদের সুখের সংসার ভাঙার চেষ্টা চালাচ্ছেন বলেও অভিযোগপত্রে উল্লেখ করেছেন।

আপনার মতামত লিখুন :