২৫ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিতে ইউজিসির সতর্কতা

প্রকাশিত : ১৭ জুন ২০২০

দেশের ২৫টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিতে সতর্কতা জারি করেছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি)। সম্প্রতি ইউজিসির বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় বিভাগের পরিচালক ড. মো. ফখরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। ভর্তি মৌসুম সামনে রেখে শিক্ষার্থীদের সচেতন করতেই এ বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে।

জানা গেছে, সতর্ক করা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর কয়েকটির বিরুদ্ধে অবৈধভাবে ক্যাম্পাস চালানোর অভিযোগ আছে। আবার কোনোটির বিরুদ্ধে অননুমোদিত প্রোগ্রাম চালানোর অভিযোগ। কয়েকটিতে আছে শিক্ষার্থী ভর্তিতে নিষেধাজ্ঞা। এ ছাড়া ইতিপূর্বে কয়েকটি বন্ধ করে দিয়েছিল সরকার, কিন্তু আদালতের আদেশে ফিরে এসেছে। তবে এখনো শিক্ষা কার্যক্রম চালুর অনুমতি পায়নি। মালিকানা দ্বন্দ্বের অভিযোগও রয়েছে কয়েকটির বিরুদ্ধে।

গণবিজ্ঞপ্তিতে ভিসি, প্রো-ভিসি ও কোষাধ্যক্ষ না থাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির ব্যাপারেও সতর্ক করা হয়েছে। কেননা, বাংলাদেশে এখনো বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনা বৈধ নয়। সনদে স্বাক্ষরের দায়িত্ব ভিসির। তাই যেসব বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিসি নেই সেগুলোতে সনদের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। ১০৫টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ৯৭টির কার্যক্রম চালু আছে। এরমধ্যে ২৫টির ব্যাপারে বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হলো।

এর মধ্যে ৯টি বিশ্ববিদ্যালয় অননুমোদিত ক্যাম্পাস চালাচ্ছে। এগুলো হচ্ছে— ইউনিভার্সিটি অব সাউথ এশিয়া, ইউনিভার্সিটি অব ডেভেলপমেন্ট অলটারনেটি, ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটি, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, উত্তরা ইউনিভার্সিটি, শান্ত-মারিয়াম ইউনিভার্সিটি, ভিক্টোরিয়া ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ, সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটি এবং নর্দান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ।

শরীয়তপুরের জেডএইচ সিকদার বিশ্ববিদ্যালয়, পুন্ড্র ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি এবং  বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অব ফ্যাশন অ্যান্ড টেকনোলজিতে অননুমোদিত প্রোগ্রাম চালাচ্ছে বলে সতর্ক করেছে ইউজিসি।

এ ছাড়া ইবাইস ইউনিভার্সিটিতে রয়েছে মালিকানা নিয়ে দ্বন্দ্ব। বর্তমানে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদিত কোন ঠিকানা নেই।

মালিকানা দ্বন্দ্ব এবং আদালতে মামলা আছে আরো ৪টিতে। এগুলো হলো—ইবাইস ইউনিভার্সিটি, সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, ব্রিটানিয়া বিশ্ববিদ্যালয় এবং সাউদার্ন ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ। তবে আদালতের স্থগিতাদেশ নিয়ে পরিচালিত হচ্ছে সাউদার্ন ইউনিভার্সিটি। এছাড়াও আমেরিকা বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি পরিচালিত হচ্ছে।

শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনার জন্য দুটি বিশ্ববিদ্যালয় অনুমতি পায়নি। এ দুটি হল- দি ইউনিভার্সিটি অব কুমিল্লা এবং কুইন্স ইউনিভার্সিটি।

হাইকোর্টের নির্দেশে দারুল ইহসান বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এছাড়া সাভারের গণবিশ্ববিদ্যালয় অননুমোদিত প্রোগ্রাম চালাচ্ছে বলে জানিয়েছে ইউজিসি। 

নতুন অনুমোদনপ্রাপ্ত ৬টি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা কার্যক্রমই শুরু হয়নি। এগুলো হচ্ছে—রবীন্দ্র সৃজনকলা বিশ্ববিদ্যালয়, নারায়ণগঞ্জের রূপায়ন একেএম শামসুজ্জোহা বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহীর আহছানিয়া মিশন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহীর শাহ মখদুম ম্যানেজমেন্ট ইউনিভার্সিটি, খুলনা খান বাহাদুর আহছানউল্লা বিশ্ববিদ্যালয় ও বরিশালের ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটি।

২৫ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিতে ইউজিসির সতর্কতার বিষয়ে নোটিশ

এদিকে, চলতি মাসের ৭ তারিখে ইউজিসির বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় বিভাগের পরিচালক ড. মো. ফখরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত কার্যালয় স্মারকে এক নির্দেশনায় বলা হয়েছে, ইউজিসির নিয়ম মেনে আগামী জুন মাস থেকে নতুন সেমিস্টারে শিক্ষার্থী ভর্তি শুরু করতে পারবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো। আর নতুন সেমিস্টারের শিক্ষা কার্যক্রম আগামী পহেলা জুলাইয়ে শুরু করা যাবে। চলমান পরিস্থিতি বিরাজমান থাকলে নতুন সেমিস্টারের ক্লাস অনলাইনে নেয়া যাবে। তবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পূর্বের নিয়মেই কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে।

আপনার মতামত লিখুন :