পানি নিরাপত্তাহীনতা বাড়ছে

প্রকাশিত : ৩০ মার্চ ২০২০

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে বারবার হাত ধোয়ার বিকল্প নেই। অথচ মধ্যপ্রাচ্য ও আফ্রিকার ১২টি দেশসহ বিশ্বের ১৭টি দেশ উচ্চ মাত্রায় পানি সংকট রয়েছে। জনসংখ্যার বিবেচনায় বিশ্বের ৮০ শতাংশ মানুষ রয়েছে পানি সংকট। এসব দেশে করোনার বিস্তার ঘটলে ভয়াবহ বিপর্যয়ের আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। জাতিসংঘ বিশ্বের নেতাদের কাছে পানি ও জলবায়ু পরিবর্তনের মধ্যকার সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে বলেছে, জলবায়ু পরিবর্তন সংকট মোকাবেলায় নীতি-পরিকল্পনা প্রণয়নের ক্ষেত্রে পানিকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিতে হবে। পানির দীর্ঘ মেয়াদি ব্যবহার নিশ্চিত করতে দায়িত্বশীল ও অর্জনযোগ্য পরিকল্পনা করতে হবে, প্রতিটি  নাগরিককে এ বিষয়ে সচেতন হতে হবে এবং নিজ নিজ দায়িত্ব পালন করতে হবে। করোনাভাইরাস মোকাবেলায় বলা হচ্ছে, হাত জীবাণুমুক্ত করতে হবে।

কিন্তু বিশ্বের ১৭টি দেশে পানির এতটাই সংকট, তারা নিত্য দিনের ব্যবহার্য পানিই পায় না। বাংলাদেশ, ভারত, ব্রাজিল, ফিলিপাইন, দক্ষিণ আফ্রিকা, কেনিয়া ও আফ্রিকার আরো অনেক দেশের স্বল্প আয়ের মানুষ ভয়াবহ পানি সংকট মোকাবেলা করে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, একজন মানুষের খাওয়া, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা, রান্না সহ প্রতিদিন সাড়ে সাত থেকে ১৭ লিটার পানি প্রয়োজন। বর্তমানে করোনার কারণে এ চাহিদা আরো বেড়ে গেছে। যাকে পানি নিরাপত্তাহীনতা বলে গবেষকরা মন্তব্য করেছেন। আর অপরিকল্পিত নগরায়ণ এবং জলবায়ু পরিবর্তন এই সমস্যাকে তীব্রতর করে তুলছে। নতুন বাস্তবতায় পানি সংকট মোকাবেলা করতে হলে ঘরে ও বাইরে প্রস্তুতি নিতেই হবে।

আপনার মতামত লিখুন :