খানসামায় ভাতার টাকা ত্রাণ তহবিলে দিলেন প্রতিবন্ধী মন্টু রায়

প্রকাশিত : ৮ মে ২০২০

খানসামা (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: দিনাজপুরের খানসামায় করোনা প্রাদুর্ভাবে সংকটময় সময়ে প্রতিবন্ধী ভাতার জমানো টাকা ত্রাণ তহবিলে দিলেন শারীরিক প্রতিবন্ধী শ্রী মন্টু চন্দ্র রায়। তিনি উপজেলার গোয়ালডিহি ইউনিয়নের নলবাড়ী গ্রামের বাসিন্দা। তিনি পেশায় একজন সাইকেল মেকার।
শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৩ টায় করোনায় কর্মহীন ও প্রতিবন্ধীদের সহায়তার জন্য ৩ মাসের প্রতিবন্ধী ভাতার জমানো ২৪০০ টাকা ও বাড়ির একটি ছোট গরু বিক্রির টাকা সহ মোট সাড়ে ১০ হাজার টাকা উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহমেদ মাহবুব-উল-ইসলামের হাতে তুলে দেন প্রতিবন্ধী মন্টু রায়।
প্রতিবন্ধী মন্টু রায় বলেন, আমি খুব গরীব মানুষ। প্রতিবন্ধী ভাতার টাকা ও বাজারে সাইকেলের মেকারী করে যা আসে তা দিয়েই সংসার চালাই। এমতাবস্থায় করোনা ভাইরাসের কারনে বাড়ির বাইরে বের না হওয়ার কারনে অনেকে করুণ দিন পার করছেন। টিভি ও পত্রিকায় করোনায় আমার মত শ্রমজীবি মানুষদের পাশে বিত্তবানদের এগিয়ে আসার সংবাদ দেখে অনুপ্রাণিত হয়ে আমি সরকার থেকে পাওয়া ৩ মাসের প্রতিবন্ধী ভাতার টাকা ও বাড়ির ছোট একটি গরু বিক্রি করে সাড়ে ১০ হাজার টাকা গোয়ালডিহি ইউনিয়ন পরিষদের ৭ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য জহুরুল হক ও দুবলিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পরেশ চন্দ্র রায়ের পরামর্শে উপজেলা ত্রাণ তহবিলে দিয়েছি। অনেকের কাছে শুনেছি আমাদের ইউএনও স্যার নাকি খুব সৎ মানুষ। তিনি বিত্তবানদের কাছে সহযোগিতা নিয়ে কর্মহীন ব্যক্তিদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করছেন। তাই আমার পক্ষ থেকে করোনায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য সামান্য সহযোগিতা করলাম।একই সাথে সকল বিত্তবানদের নিম্ন আয়ের মানুষের সহায়তায় এগিয়ে আসার জন্য উদার্ত আহবান জানান তিনি।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহমেদ মাহবুব-উল-ইসলাম বলেন, ত্রাণ তহবিলে টাকা দান করে মহানুভবতার পরিচয় দিয়েছেন মন্টু রায়। তার এ দান অনেককে অনুপ্রাণিত করবে। শারীরিক প্রতিবন্ধী হয়েও তিনি যে কাজটি করেছেন তা বাকী সবার জন্য অনুকরণীয়। 

আপনার মতামত লিখুন :