চারঘাটে প্রবেশদারে নিরাপত্তা চৌকি, করোনা প্রতিরোধে এসিল্যান্ডের সাড়াশি অভিযান 

প্রকাশিত : ১৭ এপ্রিল ২০২০

চারঘাট (রাজশাহী) প্রতিনিধি : যতোই দিন যাচ্ছে,ততোই প্রানঘাতি করোনার পাদুর্ভাব বেড়েই চলেছে দেশের বিভিন্ন এলাকায়। প্রাণ হারাচ্ছেন অনেকেই। প্রশাসন প্রাণঘাতি করোনা প্রতিরোধে বিভিন্ন ধরেনের জনসচেতা সৃষ্টি করলেও মানছে না অনেকেই। তারই ধারাবাহিকতায় রাজশাহীর চারঘাটে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে উপজেলা প্রশাসন ও স্বেচ্ছায় গ্রামবাসীর পক্ষ থেকে বিভিন্ন স্থানে বাঁশ টানিয়ে দিয়ে অস্থায়ীভাবে রাস্তা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এক এলাকার লোকজন অন্য এলাকায় যেন না প্রবেশ করতে পারে সে জন্য উপজেলার প্রবেশদারসহ বিভিন্ন গ্রামের প্রবেশদারে বাঁশ দিয়ে রাস্তা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তবে এই পথ দিয়েই জরুরী প্রয়োজনীয় যানবাহন চলাচলের ব্যবস্থাও রয়েছে।
জানা যায়, নিজ নিজ অবস্থান থেকে জনগণকে ঘরে থাকতে বাধ্য করার চেষ্টা করছেন উপজেলা প্রশাসন। এছাড়া দোকানপাট বন্ধে নোটিশ ও সারাদিন মাইকিং করা হলেও অনেক এলাকার মানুষ অগ্রাহ্য করছেন। এতে করে চরম ঝুকি বাড়ছে উপজেলা জুড়েই। লোকজন যাতে করে করোনার আক্রান্ত না হয় সেজন্য উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) আনিসুর রহমান উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশে রাত দিন অক্লান্ত পরিশ্রম করে সমানতালে ছুটছেন উপজেলার বিভিন্ন প্রান্তে। সরকালী আদেশ না মানায় বিভিন্ন ব্যাক্তিতে আর্থিক দন্ডও প্রদান করছেন তিনি। পাশাপাশি উপজেলার বিভিন্ন প্রবেশদারে বসিয়েছেন নিরাপত্তা চৌকি। এসব নিরাপত্তা চৌকিতে দায়িত্ব পালন করছেন থানা পুলিশ ছাড়াও গ্রাম পুলিশরা। আবার অনেক গ্রামে স্বেচ্ছায় গ্রামবাসিও দায়িত্ব পালন করনে। যাতে করে দেশের অন্য জেলা থেকে কোন মানুষ চারঘাটে প্রবেশ করতে না পারে আবার চারঘাটের কোন মানুষ যাতে করে অন্য জেলায় যেতে না পারে। 
উপজেলার নিমপাড়া ইউনিয়নের বাসিন্দা আতিকুর বলেন, ইউনিয়নের বিভিন্ন প্রবেশ মুখে অপ্রয়োজনে কেউ পাড়ার ভিতর প্রবেশ ও বের হতে না পারে সে জন্য বাঁশ দিয়ে অস্থায়ীভাবে রাস্তা বন্ধ ও ‘লকডাউন’ করেছে উপজেলা প্রশাসন। এ্যাসিলেন্ড স্যার নিজেই বিভিন্ন গ্রামে গিয়ে লোকজনকে সরকারী আদেশ মেনে চলার আহŸান এর পাশাপাশি প্রানঘাতি করোনা সংক্রমন থেকে নিজেদেরসহ পরিবারকে নিরাপদ রাখতে ঘরের বাইরে না যাওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছেন এলাকাবাসিকে। তবে সরকারী আদেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেয়ারও ঘোষনা দিয়েছেন তিনি। 
বিষয়টি সম্পর্কে  উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) আনিসুর রহমান বলেন, ইতিমধ্যেই পার্শ্ববর্তী পুঠিয়া উপজেলায় দুইজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের খবর পাওয়া গেছে। উপজেলা ও পুঠিয়া উপজেলা একেবারেই লাগোয়া। তাই পুঠিয়া থেকে লোকজন সহজেই চারঘাটে যাওয়া আসা করে। তবে এসব উপজেলার  লোকজন যাতে করে চারঘাটে প্রবেশ করতে না পারে সেজন্য সতর্কতা মুলক ভাবে প্রবেশদারে নিরাপত্তা চৌকি বসানো হয়েছে।তবে জরুরী প্রয়োজনীয় যানবাহন চলাচলের ব্যবস্থাও আছে।

আপনার মতামত লিখুন :