মণ্ডপে মণ্ডপে চলছে রং তুলির কাজ

প্রকাশিত : ১৭ অক্টোবর ২০২০

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি :

মাটির কাজ শেষ। এবার দুর্গাপ্রতিমায় রং-তুলির আঁচড় দিচ্ছেন বগুড়ার নন্দীগ্রামের মৃৎশিল্পীরা। এ বছর উপজেলায় ৪৩টি মন্ডপে শারদীয় দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে।

জানা গেছে, আগামী ২২ অক্টোবর থেকে শারদীয় দুর্গাপূজা শুরু হচ্ছে। ২৬ অক্টোবর প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যে দিয়ে উৎসব সম্পন্ন হবে। উপজেলার নাগরকান্দি গ্রামের প্রতিমাশিল্পী নিমাই চন্দ্র প্রামানিক বলেন, এবার তিনি উপজেলায় ১৫ টি প্রতিমার কাজ করছেন। কাজ শেষ করতে দিন-রাত ব্যস্ত সময় পার করছেন। এখন সহযোগীদের নিয়ে রং-তুলির কাজ করছেন।

তিনি আরও বলেন, এ পেশায় সারা বছর কাজ হয় না। দুর্গাপূজার সময়েই বেশি কাজ হয়। দুর্গাপূজার প্রতিমা তৈরির আয়ের টাকায় সারা বছর সংসার চালাতে হয়। উপজেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি তীর্থ সলিল রুদ্র জানান, এবার দেবী দুর্গা আসছেন দোলায় (পালকি) চড়ে। যাবেন ঘোড়ায় চড়ে। আর মাত্র ক’দিন পরই বোধনের মধ্য দিয়ে মন্দিরে স্থাপিত হবে দুর্গা প্রতিমা। শুরু হবে শারদীয় দুর্গোৎসব।

নন্দীগ্রাম উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি ও ভাইস চেয়ারম্যান দুলাল চন্দ্র মহন্ত বলেন, আনন্দমুখর পরিবেশে মা দুর্গাকে বরণ করার সব প্রস্তুতি হাতে নেওয়া হয়েছে। কোনো ধরনের ঝুঁকি এড়াতে প্রশাসনের সহায়তা নেওয়া হবে।

জানতে চাইলে নন্দীগ্রাম উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নুরুল ইসলাম বলেন, শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে এ উপজেলায় ৪৩টি মন্ডপ রয়েছে। এসব মন্ডপের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে ২১.৫ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। শান্তিপূর্ণভাবে পূজা উদযাপনের জন্য আইনশৃঙ্খলার বিষয়ে পূজা উদযাপন কমিটির সঙ্গে উপজেলা প্রশাসনের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এবিষয়ে নন্দীগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ শওকত কবির বলেন, মন্ডপের নিরাপত্তায় মন্দির কমিটির সদস্য ছাড়াও পুলিশ প্রশাসন দায়িত্ব পালন করবে। যে কোনো অপ্রীতিকর পরিস্থিতিতে প্রশাসন কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সর্বদা সতর্ক দৃষ্টি রয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :