কেন্দুয়ায় বৃদ্ধ প্রতিবন্ধী রহিমার পাশে কল্যাণী

প্রকাশিত : ২৬ এপ্রিল ২০২০

মজিবুর রহমান,কেন্দুয়া (নেত্রকোণা) : নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার মাসকা ইউনিয়নে চকসাদক কোনাপাড়া গ্রামের বৃদ্ধ প্রতিবন্ধী রহিমার পাশে দাঁড়িয়েছেন নারীনেত্রী ও সমাজকর্মী কল্যাণী হাসান। গ্রাণঘাতী করোনার পরিস্থিতিতে সত্তরোর্ধ বয়সী রহিমা আক্তারের আয়-রোজগারের পথ বন্ধ হয়ে পড়ায় মানবেত জীবন যাপন করছিলেন তিনি।

এই বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় যুবক মনিরুল ইসলাম ভূট্টো তার ফেইসবুক ওয়ালে তুলে ধরেন রহিমার করুণ কাহিনী। বিষয়টি নজরে আসে নারীনেত্রী ও সমাজকর্মী কল্যাণী হাসানের। শনিবার বিকালে চাউল,ডাল,সবজীসহ নিত্যপ্রয়োজনী সামগ্রী নিয়ে হাজির হন রহিমার বাড়িতে। এসব দেখে কল্যাণীকে জড়িয়ে ধরেন রহিমা আর হাউ মাউ করে কাঁদতে লাগলেন।

কেন্দুয়া পৌরশহরের মেয়ে কল্যাণী হাসান সম্প্রতি কল্যাণী যুব ফাউন্ডেশন নামে একটি সেচ্চাসেবী সংগঠন করে তুলেছেন। সংগঠনটির চেয়ারম্যানের দ্বায়িত্বে রয়েছেন তিনি। অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে আলোচিত নারী হয়েছেন বার বার। গ্রাণঘাতী করোনার শুরুতেই তিনি ও তার কর্মীদের নিয়ে প্রচারণা, মাক্স, হ্যান্ড স্যানীটাইজার,দরিদ্র ও কর্মহীন মানুষদের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করে এক অন্যন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।

কল্যাণী হাসান জানান, ফেইসবুক মাধ্যমে খবর পেয়ে উপজেলার মাসকা ইউনিয়নে চকসাদক কোনাপাড়া গ্রামের বৃদ্ধ প্রতিবন্ধী রহিমার বাড়িতে খাদ্যসামগ্রী নিয়ে যাই। তিনি অসুস্থতার জন্য ভালোভাবে হাঁটতে ও কথা বলতে পারেন না। নিজে থাকার কোন ঘর নেই। ছেলে-মেয়েরা থাকলে তারা কেউ বাড়িতে থাকেন না। সম্ভবত তিনি এক ছেলের ঘরে থাকেন।

ওই মহিলার স্বামী আব্দুল বারেক অনেক আগেই মারা গেছেন। তার নামে সরকারি ভাতার এক কার্ড রয়েছে। আমাকে দেখে তিনি জড়িয়ে ধরে কেঁধে পেলেন।

 

আপনার মতামত লিখুন :