কুষ্টিয়ায় দিনদুপুরে তিনজনকে গুলি করে হত্যা, আদালতে এএসআই সৌমেন

প্রকাশিত : ১৪ জুন ২০২১

ভোরের দর্পণ ডেস্ক:

কুষ্টিয়ায় দিনদুপুরে মা-ছেলেসহ তিনজনকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় বরখাস্ত হওয়া পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) সৌমেন রায়কে আদালতে নেওয়া হয়েছে।

সোমবার দুপুর সোয়া ১টার দিকে তাকে কুষ্টিয়ার বিচারক মো. রেজাউল করিমের আদালতে তাকে হাজির করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) ফরহাদ হোসেন খান।

তিনি বলেন, কুষ্টিয়ায় দিনদুপুরে মা-ছেলেসহ তিনজনকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় সৌমেনকে আদালতে হাজির করা হয়েছে। আদালতের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তার বিরুদ্ধে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কুষ্টিয়া মডেল থানার ওসি সাব্বিরুল আলম বলেন, তিনজনকে গুলি করে হত্যার ঘটনায় নিহত শাকিল খানের বাবা মেজবার রহমান বাদী হয়ে রোববার রাতে হত্যা মামলা করেন।

মামলায় এএসআই সৌমেন রায়কে একমাত্র আসামি করা হয়েছে। রাতে ৩০২ ধারায় হত্যা মামলাটি করা হয়েছে। দুপুরে তাকে আদালতে পাঠানো হয়।

উল্লেখ্য, রোববার দুপুরে শহরের কাস্টম মোড়ে আসমা খাতুন তার সাত বছর বয়সি ছেলে রবিন ও শাকিল নামে এক যুবককে গুলি করে হত্যার অভিযোগ ওঠে এএসআই সৌমেন রায়ের বিরুদ্ধে।

কোনো সালিশ অথবা মীমাংসায় নয়, তিন প্রাণের বিনিময়ে সব কিছুর ইতি টেনেছেন এক পুলিশ কর্মকর্তা। পরকীয়া সহ্য করতে না পেরে দ্বিতীয় স্ত্রী ও তার পুত্র এবং স্ত্রীর বর্তমান প্রেমিককে প্রকাশ্যে দিবালোকে মাথায় গুলি করে হত্যা করেছে ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

নিহতরা হলেন— কুমারখালী উপজেলার সাঁওতা গ্রামের মেজবার খানের ছেলে বিকাশকর্মী শাকিল খান (৩৫), একই উপজেলার নাথুরিয়া বাশগ্রামের আমির আলীর মেয়ে সৌমেন রায়ের দ্বিতীয় স্ত্রী আসমা খাতুন (৩০) এবং শিশুসন্তান রবিন (৬)।

আপনার মতামত লিখুন :