কুষ্টিয়ার গুঁড়িয়ে দেয়া হলো ৮ টি ইটভাটা দুই মালিকে ৫ লক্ষ টাকা জরিমানা

প্রকাশিত : ১৪ জানুয়ারি ২০২১

আরিফজ্জামান, কুষ্টিয়া প্রতিনিধি:

পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র ছাড়াই ইট তৈরি করায় বুধবার কুষ্টিয়ার কুমারখালীর শিলাইদহ ও যদুবয়রা ইউনিয়নে আটটি ভাটা ধ্বংস করা হয়েছে। খুলনা পরিবেশ অধিদপ্তরের নির্বাহী হাকিম মাসরুবা ফেরদৌসের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালিত হয়। ধ্বংস করা ইটভাটাগুলো হলো শিলাইদহের কল্যাণপুরের মিরাজ শেখের মালিকানাধীন মেসার্স ভাই ভাই ব্রিকস, যদুবয়রা ইউনিয়নের আরিফুল ইসলামের মেসার্স এসআরবি ব্রিকস, ফারুখ হোসেনের মেসার্স টিজেবি ব্রিকস, আল মামুনের মেসার্স সাগর ব্রিকস, আমিরুল ইসলামের মেসার্স একেবি ব্রিকস, আনোয়ার হোসেনের মেসার্স মহুয়া ব্রিকস, মো. করিম শেখের সৈনিক ব্রিকস ও সামছুলের মেসার্স নিয়াত ব্রিকস। ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, খুলনা পরিবেশ অধিদপ্তর ও কুষ্টিয়া জেলা কার্যালয় কর্তৃক সকালে অভিযান শুরু হয়ে সন্ধ্যায় শেষ হয়। অবৈধভাবে ইটভাটা পরিচালনা করায় আটটি ইটভাটার আগুন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা নিভিয়ে দেন। পরে ড্রেজার দিয়ে ভাটার স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় ও কল্যাণপুরের ভাটার কাঁচা ইট ধ্বংস করে দেয়া হয়।

এর আগে গত ১২/০১/২০২১ ইং তারিখ পরিবেশ অধিদপ্তর, কুষ্টিয়া জেলা কার্যালয় কর্তৃক অবৈধ ইটভাটার বিরুদ্ধে একটি মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। উক্ত মোবাইল কোর্টে কুষ্টিয়া জেলার সদর উপজেলার বিত্তিপাড়া ও ঝাউদিয়া এলাকার মেসার্স হাকিম ব্রিকসকে ১,০০,০০০ ও মেসার্স ডাবলু ব্রিকস কে ৪,০০,০০০ টাকা করে মোট ৫,০০,০০০/- (পাঁচ লক্ষ) টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ অধিদপ্তরের জেলা কার্যালয়ের উপ পরিচালক আতাউর রহমান, সহকারি পরিচালক কমল কুমার বর্মণসহ কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ। এছাড়া অভিযানে র‍্যাব, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। উপ পরিচালক আতাউর রহমান বলেন, ওই সব ইটভাটার পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র নেই। এগুলো নিয়মনীতি না মেনে অবৈধভাবে পরিচালনা করা হচ্ছিল। তবে অবৈধ ইটভাটা বন্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

আপনার মতামত লিখুন :