গাছে ঝুলছে টসটসে লিচু, দুশ্চিন্তায় বাগানীরা

প্রকাশিত : ১২ মে ২০২০

যশোর প্রতিনিধি : বৈশাখের প্রখর রোদে সবুজ পাতা ভেদ করে লালচে বর্ণের রঙে আভা ছড়িয়েছে সুমিষ্ট ফল লিচু পুষ্ট হয়ে ওঠা লিচু থোকায় থোকায় ভরে নুয়ে পড়েছে সপ্তাহ পেরুলেই ফলের দোকানগুলোতে শোভা পাবে এই সুমিষ্ট ফল লিচু যশোরে বিস্তীর্ণ লিচুর বাগান জোড়া এমন দৃশ্য জানান দিচ্ছে এবার লিচুর বাম্পার ফলনের তবে চলতি মৌসুমে লিচুর ভালো ফলন হলেও দুচিন্তায় বাগানীরা তারা বলছেন, গত দুই বছর রোজার মাসে লিচু পাকায় লোকসান গুণতে হয়েছে তাদের এবার করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হলে লিচু নিয়ে বিপাকে পড়তে হবে

সরেজমিনে যশোর সদর উপজেলার বিভিন্ন লিচু বাগানে ঘুরে দেখা গেছে, বাগান গুলোতে সবুজ লিচু লালচে বর্ণের রুপ নিয়েছে মৌমাছি গুণগুণ করে এক লিচু থেকে আরেক লিচুতে বসছে যশোরে মুম্বাই, দেশি, মোজাফফর চায়নাথ্রি জাতের লিচুর চাষ হয়েছে বেশি এর মধ্যে পাক ধরতে শুরু করেছে দেশিগুলোর আবার কেউ কেউ বোতি হওয়া লিচুকে অনিষ্টের হাত থেকে বাঁচাতে এরই মধ্যে জাল দিয়ে ঢেকে দিচ্ছেন

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর মতে, যশোরের আট উপজেলায় মধ্যে সবচেয়ে বেশি লিচু চাষ হয় সদর বাঘারপাড়া উপজেলায় পরিবহন বাজার ব্যবস্থাপনা ভালো হওয়ায় দিনকে দিন এই জেলায় লিচু চাষ বৃদ্ধি পাচ্ছে চলতি মৌসুমে হেক্টর জমিতে লিচুর চাষ হয়েছে আবহাওয়া ভালো থাকায় এবারে লিচুর ভালো ফলন হয়েছে তবে লিচু গাছের মুকুল থেকে ফলে রুপান্তিত হওয়ার মূহূর্তে শিলাবৃষ্টিতে আঘাত না আনলে আরো ভালো ফলনের আশাবাদী ছিলো কৃষি বিভাগের 

যশোর সদর উপজেলার ডাকাতিয়া গ্রামের লিচু চাষী সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘চলতি মৌসুমে এক লক্ষ টাকা দিয়ে একটি বাগান লিজ নিয়েছি বাগানে দেশী, চায়না চায়না থ্রি লিচুর ফলন ভালো হয়েছে এক সপ্তাহ পরেই পরিপূর্ণ পাকতে শুরু করবে লিচু

একই এলাকার কৃষক শাহজাহান বলেন, ভালো ফলন পেতে নিয়মিত গাছের পরিচর্যা করেছি কিন্তু লিচুর দাম নিয়ে সংশয়ে রয়েছি করোনার কারণে বিভিন্ন জেলা থেকে পাইকার না আসায় লিচুর সঠিক দাম পাবো কিনা চিন্তিত

আজগার হোসেন নামে এক বাগানমালিক অভিযোগ করেন, লিচু চাষীদের জন্য কোন প্রশিক্ষণ ব্যবস্থা নেই কিছু ওষুধ কোম্পানির লোকেরা মাঝে মাঝে সেমিনার করেন ফলে নিজেদের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়েই চাষ করতে হয়

দিকে যশোর শহরের বাজার গুলোতে স্বল্প পরিসরে উঠতে শুরু করেছে লিচু তবে দাম চড়া বাজারে পাওয়া যাচ্ছে মুম্বাই চায়না লিচু বাজারে এক লিচু বিক্রি হচ্ছে থেকে হাজার টাকা পর্যন্ত 

বিষয়ে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক . আখতারুজ্জামান বলেন, আবহাওয়া ভালো থাকায় এবার লিচুর ফলন ভালো হয়েছে তবে লিচুর খাতে সরকারি কোনো প্রকল্প না থাকায় প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা নেই লিচুর স্বাদ কোয়ালিটি রক্ষার জন্য চাষীদের হরমোন প্রয়োগ থেকে বিরত থাকার আহ্বা জানানো হচ্ছে

 

আপনার মতামত লিখুন :