শীতলক্ষ্যায় লঞ্চ ডুবিয়ে দেওয়া সেই জাহাজ জব্দ, আটক ১৪ স্টাফ

প্রকাশিত : ৮ এপ্রিল ২০২১

ভোরের দর্পণ ডেস্ক:

নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীতে লঞ্চডুবির ঘটনায় অভিযুক্ত এমভি এসকেএল-৩ নামের কার্গো জাহাজটিকে আটক করেছে কোস্টগার্ডের সদস্যরা। মুন্সিগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার মেঘনা নদী থেকে জাহাজসহ ১৪ জন স্টাফকে আটক করা হয়েছে। জাহজ ও আটক ব্যক্তিদের নৌ-পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার দিকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ। তিনি জানান, পাগলা কোস্টগার্ড স্টেশনের সদস্যরা গজারিয়া থেকে কার্গো জাহাজটিকে আটক করেছে বলে নিশ্চিত করেছেন। বেশ কয়েকজন স্টাফকেও আটক করা হয়েছে। বিস্তারিত পরে জানানো হবে।

গজারিয়া নৌ-পুলিশের স্টেশন অফিসার মো. আবদুস সালাম জানান, দুপুর ২টা ৪০ মিনিটের দিকে আটককৃত জাহাজসহ ১৪ জন স্টাফকে কোস্টগার্ডের সদস্যরা নৌপুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে।

এদিকে, নারায়ণগঞ্জের সদর উপজেলার সৈয়দপুর কয়লাঘাট এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদীতে কার্গো জাহাজের ধাক্কায় যাত্রীবাহী লঞ্চডুবিতে ৩৪ জন নিহতের ঘটনায় মামলা করা হয়েছে। গত ৬ এপ্রিল রাতে বিআইডব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের উপ-পরিচালক বাবু লাল বৈদ্য বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে বন্দর থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

জানা যায়, বিআইডব্লিউটিএ কর্মকর্তা বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলাটি দায়ের করেছেন। এতে হত্যার উদ্দেশ্যে বেপরোয়া গতিতে জাহাজ চালিয়ে হত্যা সংঘটিত করা হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ৪ এপ্রিল সন্ধ্যা ৬টা ২০ মিনিটে সৈয়দপুর কয়লাঘাট এলাকায় কার্গো জাহাজ ধাক্কা দিয়ে ‘সাবিত আল হাসান’ নামের লঞ্চটি অর্ধশতাধিক যাত্রীসহ ডুবিয়ে দিয়ে পালিয়ে যায়।

আপনার মতামত লিখুন :