ঘরে ৩ দিন আটকে রেখে গৃহবধূকে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

প্রকাশিত : ১৭ অক্টোবর ২০২০

ভোরের দর্পণ অনলাইন:

মাদারীপুরে টেকেরহাট উপজেলায় বাসায় ৩ দিন আটকে রেখে গৃহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় জড়িত তিনজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

গ্রেফতার ধর্ষকরা হল- মাদারীপুর শহরের পানিছত্র এলাকার আ. লতিফ বেপারীর ছেলে ফারুক হোসেন বেপারী (৪৬), টেকেরহাটের মহিষেরচর গ্রামের আ. মান্নান হাওলাদারের ছেলে লিটন হাওলাদার (৪৯), একই গ্রামের বেলুন হাওলাদারের ছেলে তৈয়ব আলী হাওলাদার (৪৮)।

এ ঘটনায় র‌্যাব-৮ মাদারীপুর ক্যাম্পের একটি চৌকস আভিযানিক দল মাদারীপুর সদর উপজেলার কেন্দুয়া ইউনিয়নের কলাগাছিয়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে অপহৃত ওই গৃহবধূকে (২৮) উদ্ধার করেছে।

শুক্রবার রাতে র‌্যাব-৮, সিপিসি-৩ মাদারীপুর ক্যাম্পের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. ইফতেখারুজ্জামান এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানান, গত ১৩ অক্টোবর ধর্ষণকারী ফারুক হোসেন বেপারীর নেতৃত্বে লিটন হাওলাদার ও তৈয়ব আলী হাওলাদার মাদারীপুর শহরের পানিছত্র এলাকার জুলহাস চৌকিদারের বাড়ির ভাড়াটিয়া এক গৃহবধূকে অপহরণ করে।

এরপর সদর উপজেলার কলাগাছিয়া গ্রামে এক ভাড়া বাসায় নিয়ে ভিকটিমকে আটকে রাখে। এরপর তিনজন মিলে গত ১৩ অক্টোবর থেকে ১৬ অক্টোবর পর্যন্ত ভিকটিমকে উক্ত ঘরের ভিতরে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

ভিকটিম কৌশলে উক্ত ঘটনার বিষয়টি শুক্রবার সকালে র‌্যাব-৮, মাদারীপুর ক্যাম্পকে অবহিত করেন।

এরপর র‌্যাব-৮, মাদারীপুর ক্যাম্পের একটি বিশেষ আভিযানিক দল ঘটনাস্থলে গিয়ে ভাড়া বাসা হতে অপহৃত ভিকটিমকে উদ্ধার করে। এরপর জড়িত ফারুককে ঘটনাস্থল থেকে গ্রেফতার করা হয়।

পরবর্তীতে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে লিটন ও তৈয়বকেও মাদারীপুর শহরের পানিছত্র এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়।

ভিকটিম এবং গ্রেফতার আসামিদের মাদারীপুর সদর মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। উক্ত ঘটনায় ভিকটিম নিজেই বাদী হয়ে মাদারীপুর সদর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করলে পুলিশ আসামিদের গ্রেফতার দেখিয়ে শুক্রবার বিকালে আদালতে পাঠায়।

পরে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক শহিদুল ইসলাম তিনজনকেই কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

আপনার মতামত লিখুন :