কটিয়াদিতে ভূয়া হাসপাতালে সিজারের নামে জরায়ু কেটে নবজাতককে হত্যার অভিযোগ

প্রকাশিত : ২৪ অক্টোবর ২০২০

কিশোরগন্জ প্রতিনিধি:

জেলার কটিয়াদি উপজেলায় অনুমোদনহীন এক হাসপাতালে অদক্ষ চিকিৎসকের হাতে সিজার রোগীর জরায়ু কেটে ফেলা সহ শিশু হত্যার অভিযোগ উঠেছে।
জানাগেছে, কটিয়াদি পৌর এলাকার কলামহল মসজিদ বিল্ডিংয়ে তিন বছর ধরে কেয়ার জেনারেল হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার নামে লাইসেন্স বিহীন এ হাসপাতাল কয়েক ডজন চিহ্নিত দালালের সহায়তায় এধরনের অপ চিকিৎসা করে আসছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সন্নিকটের এ ক্লিনিক কাম ডায়াগনস্টিক সেন্টারটির মালিক রিয়াদ হোসেনের পিতা ও সরকারী কর্মচারী থাকার সুযোগে ও পূর্ব পরিচয়সূএে কমপ্লেক্সের রোগীদের ও সকল পরীক্ষার কাজ পায়। সম্প্রতি একই উপজেলার বনগ্রাম নোয়াপাড়া গ্রামের বাসিন্দা হাজী আঃ বাতেন ভূঁইয়ার ছেলে মোঃ সাদেকের স্ত্রী নাসিমা (৩০) কে ডেলিভারীর সিজার করাতে নিয়ে যান কেয়ার হাসপাতালে।

ভর্তি রেজিঃ অনুযায়ী রোগী সনাক্ত নং২০০৯০১৯১ তারিখ -২১/০৯/]২০২০ খ্রিঃ, মোটা অংকের টাকা নিয়ে কোনপ্রকার পরীক্ষা ছাড়াই সিজার করতে গিয়ে রোগিণীর জরায়ু কেটে ফেলে রক্তক্ষরণ বন্ধ না হলে ময়মনসিংহ রেফার্ড করে।

নবজাতক ও আইসিও ব্যবস্হা না থাকায় চিকিৎসকের অদক্ষতায় মারা যায়। অপচিকিৎসা ও শিশু মৃত্যুর ঘটনাটি জেলার সিভিলসার্জন কে লিখিত ভাবে ও প্রকাশিত সংবাদের মাধ্যমে অবহিত করলেও অদৃশ্য কারণে ক্লিনিক কাম ডায়াগনস্টিক সেন্টার কেয়ার নামে প্রতিষ্ঠানটি বহাল তবিয়তে আছে।

আপনার মতামত লিখুন :