গোপালগঞ্জে লকডাউন কার্যকরে মাঠে নেমেছেন পুলিশ সুপার আয়েশা সিদ্দিকা

প্রকাশিত : ২৪ জুলাই ২০২১
গতকাল দুপুরে গোপালগঞ্জ সড়ক ভবনের সামনের চেকপোস্টে গ্রাম থেকে শহরে আসা যাত্রীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন পুলিশ সুপার আয়েশা সিদ্দিকা। ছবিঃ ভোরের দর্পণ। 

কে এম সাইফুর রহমান, গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ
গোপালগঞ্জে করোনা মোকাবেলায় পবিত্র ঈদ-উল-আজহা পরবর্তী গত ২৩ জুলাই ভোর থেকে সরকার ঘোষিত ফের ২ সপ্তাহের লকডাউন কার্যকরে কঠোর অবস্থানে রয়েছে জেলা আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।
এ লক্ষ্যে জেলা পুলিশ সুপার আয়েশা সিদ্দিকা পিপিএম-সেবা শনিবার সকাল থেকে শহরের লঞ্চঘাট চেকপোস্ট, বিসিক শিল্পনগরী ব্রীজ, গেটপাড়া সড়ক ভবনের সামনের চেকপোস্ট, পুলিশ লাইন মোড়, বেদগ্রাম-বিশ্বরোড সহ ঘোনাপাড়া চেকপোস্টে দুপুর পর্যন্ত অবস্থান করেন। এ সময় বিভিন্ন গ্রাম থেকে শহরে আসা রিক্সা, মোটর সাইকেল, ইজিবাইক ও গাড়ী থামিয়ে যাত্রীদের পরিচয় নেন এবং রাস্তায় বের হওয়ার সুনির্দিষ্টট কারণ   জিজ্ঞাসাবাদ করেন তিনি। যে সকল মানুষ কেবল জরুরি সেবার সাথে সম্পৃক্ত অথবা চিকিৎসাসেবা নিতে শহরে এসেছেন। কেবল তাদেরকেই চেকপোস্ট অতিক্রম করার অনুমতি দেন তিনি, এছাড়া বিনা প্রয়োজনে ঘুরতে আসা লোকদেরকে ঘরে ফিরিয়ে দেন তিনি। পরে পুলিশ সুপার আয়েশা সিদ্দিকা পিপিএম-সেবা শহরের বিভিন্ন অলিগলি ঘুরে দেখেন, কোথাও কোন দোকানপাট খোলা রয়েছে কিনা।
এ সময় পুলিশ সুপার গণমাধ্যমকে জানান, গোপালগঞ্জে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সংক্রমণের মাত্রা ও মৃত্যুর হার দিন দিন বেড়েই চলেছে। যা রীতিমতো উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এরপরও মানুষ পরিপূর্ণভাবে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে নানা অজুহাতে প্রতিদিন বিনা প্রয়োজনে ঘরের বাইরে বেরিয়ে স্বাস্থ্য ঝুঁকি বাড়াতে সহযোগিতা করছে। তাই আইন প্রয়োগ করে বিনা প্রয়োজনে ঘরের বাহিরে বের হওয়া মানুষের চলাচল কমিয়ে আনতে আমরা সর্বত্র চেষ্টা চালাচ্ছি।
এ লক্ষ্যে গোপালগঞ্জ জেলা পুলিশের সকল কর্মকর্তা ও সদস্যরা প্রতিদিন ভোর থেকে রাত পর্যন্ত নিষ্ঠার সাথে তারা তাদের পেশাগত দায়িত্ব পালন করে চলেছেন। পুলিশ সুপার আয়েশা সিদ্দিকা চেকপোস্টে ডিউটিতে নিয়োজিত আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কর্মকর্তা ও সদস্যদের ঝড়-বৃষ্টি উপেক্ষা করে যথাযথভাবে সরকারি দায়িত্ব পালন করায় সন্তোষ প্রকাশ করেন এবং লকডাউন কার্যকরে তাদেরকে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা প্রদান করেন।
স্বাস্থ্যবিধি মেনে এ সময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোঃ আব্দুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নিহাদ আদনান তাইয়ান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোঃ খায়রুল আলম, গোপালগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মনিরুল ইসলাম, ওসি (তদন্ত) শীতল পাল, ডিআইও-১ আমিনুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত লিখুন :