কালকিনিতে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কাচা মালের দোকান সামাজিক দুর্রত্ব বজায় রেখে করা হচ্ছে

প্রকাশিত : ১৮ এপ্রিল ২০২০

মাদারীপুরঃ কালকিনি উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক মীর গোলাম ফারুক ও উপজেলা আ’লীগের সাবেক সদস্য ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এসএম হানিফ সরদার সকাল থেকে ভুরঘাটা বাজারের কাচা বাজার,মাছ বাজার গোস্তর বাজার, ও ফুটে বসা মুদিদোকান গুলিকে সরিয়ে ৩ফিট দুরত্ব বজায় রেখে স্থাপন করছেন। এ বাজার মাদারীপুর জেলার শেষ সীমান্তে এবং বরিশাল জেলার শুরুর শিমানায় বিধায় দুই জেলার হাজার হাজার মানুষের সমাগম ঘটে।এ বাজারে সকল প্রকার চাউলের, মুদি,তরকারীর,ফুট.তরমুজ,আনারস,পেয়ারা,কলা,সকল প্রকার ফলের আড়ৎ ও পাইকারী মোকাম হওয়ায় দোকানীদের ভীরও লেগেই থাকে। তাই দুই জেলার মানুষ সামাজিক দুর্রত্ব বজায় রেখে নিত্য প্রয়োজনীয় দব্যাদি সংগ্রহ করতে পারেন। এর পাশাপাশি বাজারে আগদের উদ্দ্যেশে হ্যান্ড মাইকে সামাজিক দুর্রত্ব বজায় রেখে নিত্য প্রয়োজনীয় দব্যাদি সংগ্রহ করে সবাইকে দ্রুত চলে যাওয়ার জন্য প্রচার প্রচারনা চালাচ্ছেন। এদিকে ভুরঘাটা বাজার মাদারীপুর জেলার শেষ সীমান্ত এবং বরিশাল জেলার শুরু  বিধায় দুই জেলার পুলিশ প্রশাসন প্রতিদিনের ন্যায় জানচলাচলে ও মানুয়ের যাতায়াতের উপর করা তদারকি করছেন।

এসএম হানিফ সরদার বলেন,আমাদের সচেতনতা,সামাজিক দুর্রত্ব রাখা এবং বেশীর ভাগ সময় ঘরে থাকাই করোনা ভাইরাসের প্রতিরোধ। 
আমরা প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে কেউ বের হব না। তাই দুর্রত্ব বজায় রেখে আপনি বাচুঁন অন্যকে বাচঁতে সহায়তা করুন।

এস আই নিত্য রঞ্জন বলেন, আমরা মাদারীপুরের ও বরিশালের কোন জনগনকে জরুরী কারন ছাড়া আসতে যেতে দিচ্ছি না এবং গাড়ি চলাচলে সর্তকতা মেনে যাতায়েত করতে দিচ্ছি।

উপজেলা চেয়ারম্যান মীর গোলাম ফারুক বলেণ, ভুরঘাটা বাজারটা খুবই গুরত্ব পূর্ন বিধায় সকাল থেকে বাজারে আগত জনগনকে সামাজিক দুর্রত্ব বজায় রাখার আহবান করছি। এবং বাজারের সমসাত দোকানিদের দূর্রত্ব বজায় রেখে দোকান বসার ব্যবস্থা করে দিয়েছি।
 

আপনার মতামত লিখুন :