আশুলিয়ায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ইমন-পারভেজ বাহিনীর হামলা ও ভাংচুর

প্রকাশিত : ২ ডিসেম্বর ২০২১

 

আশুলিয়া (ঢাকা) প্রতিনিধি :

আশুলিয়ায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ইমন-পারভেজ বাহিনীর হামলায় মোঃ জিহান হোসেন (২০) নামে এক কলেজ শিক্ষার্থী গুরুতর আহত হয়েছে। এসময় ইমন বাহিনী একটি মুদি দোকান ভাঙচুরসহ লুটপাটও করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

বুধবার রাত ৯টার দিকে আশুলিয়ার চিত্রশাইল কাঁঠালতলা বাজারে এই হামলার ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত মোঃ জিহান হোসেন চিত্রশাইল কাঁঠালতলা এলাকার আব্দুর রশিদ মুন্সীর ছেলে।

প্রত্যাক্ষ্যদর্শী মোঃ আনোয়ার হোসেন জানান, দোকানে চা খেতে বসেছি এমন সময় ২০-২৫ জন কিশোর দেশীয় অস্ত্র হাতে হঠাৎ করে দোকানপাঠ ভাংচুর শুরু করে। এসময় জিহান নামের যুবকটি এগিয়ে এসে তাদেরকে বাঁধা দিতে গেলে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে জিহানের উপর হামলা করে। এঘটনায় জিহান গুরুতর আহত হয়।

মুদি দোকানদার মোঃ রাকিব জানান, ২০-২৫ জন অল্প বয়সী যুবক রামদা, চাপাতি, ছুরি ও লোহার পাইপসহ সংঘবদ্ধ হয়ে অতর্কিতভাবে দোকান ভাংচুর করে ক্যাশে থাকা ৩২ হাজার টাকা লুট করে এবং জিহান নামের কলেজ শিক্ষার্থীকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে। এরপর ইমন ভাই জিন্দাবাদ বলে মিছিল করতে করতে চলে যায় তারা।

কাঠালতলা বাজার কমিটির সভাপতি মোঃ সাইফুল ইসলাম জানান, রাত ৯টার দিকে হঠাৎ করে কিশোর গ্যাং সন্ত্রাসীরা দেশীয় অস্ত্রে সজ্জ্বিত হয়ে ধরধর বলে চিৎকার করে প্রথমে যুবলীগের শাখা অফিসের বন্ধ শাটারে কুপিয়ে খোলার চেষ্টা করে। এরপর পাশের দোকানে বসে থাকা একটি ছেলেকে কুপিয়ে এবং পিটিয়ে মারাত্মকভাবে জখম করে। পরে দোকান ভাংচুর করে মিছিল করতে করতে এলাকা ত্যাগ করে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয়রা জানান, ইমন ও পারভেজের নেতৃত্বে ৩০-৩৫ জনের একটি কিশোর গ্যাং রয়েছে। তারা প্রতিনিয়ত আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট চালিয়ে আসছে। কেউ তাদের বিরুদ্ধে কথা বললেই তার উপর হামলা করে।

ইয়ারপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সহ-সভাপতি মোঃ আমির হোসেন জানান, রাত আনুমানিক ৯টায় নরসিংহপুর সোনা মিয়া মার্কেট এলাকার মোঃ শফিকের ছেলে ইমন ও মোঃ ফালু মিয়ার ছেলে পারভেজ নেতৃত্বে ২০/২৫ জনের একটি দল আমার অফিসের শাটার কুপিয়ে এবং লোহার পাইপ দিয়ে আঘাত করে ভাংগার চেষ্টা করে। এরপরে পাশের দোকানে বসা আমার ছোট ভাই জিহান তাদেরকে বাঁধা দেওয়ায় তাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে এবং পিটিয়ে জখম অবস্থায় ফেলে যাওয়ার সময় দোকানপাট ভাংচুর ও লুটপাট চালিয়ে মিছিল করতে করতে চলে যায়। আমি পুলিশ প্রশাসনের কাছে ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত ও সঠিক বিচার চাই।

এবিষয়ে আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোঃ এমদাদুল হক জানান, ঘটনাস্থল পুলিশ পরিদর্শন করেছেন। লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :