তাবলিগের দুইপক্ষের ৩২১ বিদেশিকে রাখা হলো দুই মসজিদে

প্রকাশিত : ৪ এপ্রিল ২০২০

ভারতে তাবলিগ জামাতের সমাবেশ থেকে নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) ছড়িয়ে পড়ার প্রেক্ষাপটে তাবলিগের প্রচারে বাংলাদেশে আসা ৩২১ বিদেশিকে ঢাকার দুটি মসজিদে জড়ো করে রাখা হয়েছে।

উভয়গ্রুপকে পৃথক মসজিদে আলাদা ঘরে রেখে তালা দেয়া হয়া হয়েছে। তাদের সঙ্গে কাউকে দেখা করতে দেয়া হবে না। আবার তাদের কেউ ওই ঘর থেকে বের হতে পারবেন না।

যাত্রাবাড়ী ও রমনা থানা পুলিশ জানায়, ৩২১ জনের মধ্যে ঢাকার কাকরাইল জামে মসজিদে আছেন ১৯১ জন। তারা মাওলানা সাদ কান্ধলভীর অনুসারী। বাকি ১৩০ জনকে জড়ো করে রাখা হয়েছে যাত্রাবাড়ীর কলাপট্টি মদিনা জামে মসজিদে।

যাত্রাবাড়ী থানার ওসি মো মাজহারুল ইসলাম বলেন, ‘বিবাদমান দুটি অংশের মধ্যে মাওলানা জোবায়েরের অনুসারী ১৩০ জনকে মদিনা মসজিদে রাখা হয়েছে। তারা ভারত, পাকিস্তান, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়ার নাগরিক। মদিনা মসজিদে বড় হওয়ায় ১৩০ জনকে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে এনে সেখানে আলাদা রাখা হয়েছে। তাদের দাওয়াতি কাজ শেষ। বিমানবন্দর খুললেই তাদের দেশে পাঠানো হবে।’

রমনা থানার ওসি মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘বর্তমানে কাকরাইল মসজিদে কাউকে ঢুকতে ও বের হতে দেয়া হচ্ছে না। কাকরাইল মসজিদে বিদেশিদের পাশাপাশি তাদের দেখাশোনার জন্য ৩০ থেকে ৪০ জন রয়েছেন।

সম্প্রতি ভারতের দিল্লিতে তাবলিগ জামাতের একটি সমাবেশ থেকে অনেকের মধ্যে কোভিড-১৯ রোগ ছড়িয়ে পড়েছে। এতে বেশ কয়েকজনের মৃত্যু হয়েছে।

গত দুদিনের পরীক্ষায় ওই সমাবেশে অংশ নেয়া ৬৫০ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে বলে ভারতীয় গণমাধ্যমে খবর এসেছে। এরপর প্রায় দুই হাজার মুসল্লিকে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।

তার আগে মালয়েশিয়ায় তাবলিগের একটি সমাবেশ থেকে সে দেশে অনেকের মধ্যে কোভিড-১৯ ছড়িয়ে পড়ে।

আপনার মতামত লিখুন :