সম্ভব নয় নির্দিষ্ট সময়ে আরিয়াল বিলের ধান কাটা, শ্রমিক সংকটে এগিয়ে আসছে জেলা পুলিশ

প্রকাশিত : ২৭ এপ্রিল ২০২০

মুন্সিগঞ্জ  প্রতিনিধিঃ
মুন্সিগঞ্জের আড়িয়াল বিলে এখনও কাটছেনা শ্রমিক সংকট, দূর্যোগপূর্ন আবহাওয়ায় বাড়ছে কৃষকের শঙ্কা। আড়িয়াল বিল এ সরকার কৃষকদের জন্য একটি  প্রদত্ত কম্বাইন্ড হারবেষ্টার প্রদান করা হয়। যার দ্বারা প্রতিদিন ১০ থেকে ১২ একর জমির ধান কাটা গেলেও নির্দিষ্ট সময়ে ধান কাটতে, আরও শ্রমিক প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন কৃষকরা। এবছর মুন্সিগঞ্জে ২৯,৯৮০ হেক্টর জমিতে ১,০৭,৭০০ মেঃ টন ধান উৎপাদন হয়েছে। যার তুলনায় বাড়তি শ্রমিকের বিকল্প নেই বলে জানিয়েছেন কৃষকরা।

দেশের মধ্যান্ঞ্চলের সবচেয়ে বড় প্রাকৃতিক ঐতিহ্য মুন্সিগঞ্জের আড়িয়াল বিলে এবার ধানের ব্যাপক ফলন হয়েছে। কিন্তু দেশের এই মহাসংকটময় সময়ের কারনে ফসল উত্তোলনের জন্য নেই শ্রমিক। প্রতিবছর দেশের বিভিন্ন অন্ঞ্চল থেকে বিপুল পরিমান শ্রমিক আসে আড়িয়াল বিলে শুধুমাত্র ধান কাঁটার জন্য। কিন্তু করোনা ভাইরাস এর কারনে মুন্সিগঞ্জসহ বিভিন্ন জেলা লকডাউন করায়, আড়িয়াল বিল এ আসতে পারছেনা ধান কাঁটার শ্রমিকরা। ফলে দূর্যোগপূর্ন আবহাওয়ার কারনে বিপাকে পড়েছে আড়িয়াল বিল এর কৃষকরা। তারা জানায়, এই দুর্যোগপূর্ন আবহাওয়ায় যদি আগামী ৭ থেকে ১০ দিনের মধ্যে যদি এই ধান কাটা না যায় তাহলে এই ধান পানির নিচে তলিয়ে যাবে। ফলে নষ্ট হয়ে যাবে বিপুল পরিমান ধান, যা দেশে খাদ্য সংকটের একটি কারণ হয়ে দাঁড়াবে।

এ সমস্যা লাঘবে মুন্সিগঞ্জ জেলা পুলিশ এর পক্ষ থেকে  শ্রমিক সংকট মেটাতে কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। ইতিমধ্যে আলু কাটা শ্রমিকদের ভরনপোষণ ও থাকার ব্যাবস্হা করেছে পুলিশ। এবং বাইরে থেকে আসা শ্রমিকদের নিজ দায়িত্বে গন্তব্যেও পৌছে দিচ্ছেন তারা। পুলিশ সুপার মোঃ আব্দুল মোমেন পিপিএম জানান- শ্রমিক সংকট মেটাতে অন্যান্য জেলায় পুলিশের উর্ধতন কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলছেন তিনি। চেষ্টা করছেন অন্যান্য জেলার শ্রমিকরা যাতে কোন প্রকার বাধা বিপত্তি ছাড়া সহজেই মুন্সিগঞ্জে পৌঁছাতে পারে এবং শ্রমিকদের নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌছতে যথাযথ ব্যাবস্হা করবে পুলিশ।

আপনার মতামত লিখুন :