চাপাইনবাবগঞ্জে সরকারী সহায়তার আওতা ও পরিমান বেড়েছে

প্রকাশিত : ১৩ এপ্রিল ২০২০

জাকির হোসেন পিংকু, চাঁপাইনবাবগঞ্জ :করোনা সংকটে চাঁপাইনবাবগঞ্জে বেকার হয়ে পড়া মধ্য ও নিম্ম আয়ের বিভিন্ন পেশার এবং দরিদ্র মানুষের জন্য কয়েক দফায় সরকারী সহায়তার প্রকৃতি ,আওতা ও পরিমান বাড়ানো হয়েছে। সোমবার (১৩’এপ্রিল) সকালে জেলা প্রশাসক  এজেডএম নূরুল হক স্বাক্ষরিত প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে। 
সরকারী সহায়তা (ত্রাণ) কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে নগদ অর্থ,শিশু খাদ্য ক্রয়ের জন্য নগদ অর্থ,চাল,পৌর এলাকাসমুহের জন্য ১০ টাকা কেজি দরের চাল বিক্রির বিশেষ ওএমএস ও খাদ্য বান্ধব কর্মসূচীর অধীনে ১০ টাকা কেজি দরের চাল। এসব সহায়তা কর্মসূচীতে জেলায় উপকারভোগি পরিবারের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ লক্ষ ৯ হাজার ১১৩ জন।
প্রতিবেদনে জানা গেছে,সোমবার সকাল পর্যন্ত সমগ্র জেলা অর্থাৎ জেলা সদর সহ সকল উপজেলার (৫টি) মোট ৪৫টি ইউনিয়ন ও ৪টি পৌরসভায় ৬ হাজার ৪১৬ পরিবারের জন্য বরাদ্দ হয়েছে নগদ ৩৯ লক্ষ ৫ হাজার টাকা (জিআর ক্যাশ)। বিতরণ হয়েছে ১৬ লক্ষ ৪ হাজার টাকা। মজুদ রয়েছে ২৩ লক্ষ ১ হাজার টাকা। ৩৭ হাজার ১শত পরিবারের জন্য বিনামূল্যের জিআর চাল বরাদ্দ হয়েছে ৭৪৮ টন। বিতরণ হয়েছে ৩৭১ টন। মজুদ রয়েছে ৩৭৭ টন চাল। 
এদিকে গত শনিবার (১১’এপ্রিল) ১২৩ টন বিনামূল্যের চাল,১০ লক্ষ ৪৪ হাজার নগদ টাকা ও শিশু খাদ্য ক্রয় বাবদ নগদ ২ লক্ষ টাকা উপজেলা পর্যায়ে বরাদ্দ হয়েছে। এছাড়া খাদ্য বান্ধব কর্মসূচীর অধীনে ১০ টাকা কেজি দরে বিক্রির জন্য ১হাজার ৮০৮ টনের বেশি চাল বরাদ্দ হয়েছে। বিতরণ হয়েছে ১ হাজার ১২০ টন। মজুদ রয়েছে ৬৮৭ টন। বিশেষ ওএমএস চাল বরাদ্দ হয়েছে ২৯ টন। বিতরণ হয়েছে ২৭ টন। মজুদ রয়েছে ২ টন।  
প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, সরকারী সহায়তার পরিমান ও আওতা আরও বাড়তে পারে।   

আপনার মতামত লিখুন :