শ্রমিকলীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক পদে এগিয়ে মতিউর

প্রকাশিত : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

 

আরিফুজ্জামান, কুষ্টিয়া :

কেন্দ্রীয় জাতীয় শ্রমিকলীগের এবারের সম্মেলনে শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক পদে জনপ্রিয়তার শীর্ষে এইচ এম মতিউর রহমান। এইচ এম মতিউর রহমান সৎ জন ব্যক্তি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল মানুষ। শুধু তাই নয়, আস্থার মানুষও বটে। কেন্দ্রীয় শ্রমিক লীগের সাংগঠনিক কর্মকান্ড আরও এগিয়ে নিতে এইচ এম মতিউর রহমানের বিকল্প নেই। তাই এবারের জাতীয় শ্রমিক লীগের সম্মেলনে শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক পদপ্রার্থী’র তালিকার সবার থেকে জনপ্রিয়তার শীর্ষে এখন এইচ এম মতিউর রহমান। এইচ এম মতিউর রহমান গণপূর্ত অধিদপ্তরের শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন রেজিঃনং বি-২০০৫(জাতীয় শ্রমিক লীগ অন্তভূর্ক্ত)’র তরুন শ্রমিক নেতা, সরকারী চাকুরিজীদের সম্মিলিত অধিকার আদায় ফোরাম কেন্দ্রীয় আহবায়ক পরিষদের সদস্য ও স্বাধীনতা সরকারী চাকুরিজীবী জাতীয় পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি। সুদক্ষ নেতৃত্বের কারণে জাতীয় শ্রমিক লীগের কুষ্টিয়া জেলা শাখার যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি। সাফল্য’র সাথে কাজ করায় কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ ও তূণমুল শ্রমিক লীগের নেতাকর্মীদের আস্থাভাজন হন এইচ এম মতিউর। সাংগঠনিকভাবে সুদক্ষ নেতৃত্ব দেওয়ায় জেলার গন্ডি পেরিয়ে নজর কারে সারাদেশের শ্রমিক লীগের নেতাকর্মীদের। তাই এবার লড়বেন জাতীয় শ্রমিক লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক পদে।

তৃণমূল শ্রমিক লীগের নেতা-কর্মীরা বলছেন, ছাত্র জীবন থেকেই এইচ এম মতিউর রহমান রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। দীর্ঘদিন ধরে শ্রমিকদের অধিকার আদায় ও তাদের ভাগ্য উন্নয়নের কাজ করছেন তিনি। শ্রমিকদের কল্যাণে তার নানা মুখি কর্মকান্ড সত্যি প্রশংসিত। তার কর্মকান্ডে অন্তন্ত খুশি আমরা তাই শিক্ষা বিষয়ক পদে অন্য কাউকে নয় এবার এইচ এম মতিউর রহমানকেই দেখতে চান তারা। এইচ এম মতিউর রহমান শুধু কুষ্টিয়া জেলা নয়, সারাদেশের শ্রমিক লীগের প্রভাবশালী নেতা হিসেবে পরিচিতিও রয়েছে তার। তাই এইচ এম মতিউর রহমানের বিকল্প নেই। তাই এবারের সম্মেলনে শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক পদ প্রত্যাশী সবার থেকে এগিয়ে আছেন এইচ এম মতিউর রহমান।

এ বিষয়ে এইচ এম মতিউর রহমানের সাথে কথা হলে তিনি জানান, শ্রমিকদের ভাগ্য উন্নয়ন ও তাদের কল্যাণে নিরলস কাজ করে যাচ্ছি, কাজ করে যাবো। জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের রোডমার্চে আমি অবশ্যই শরীক হবো। সংগঠন ও শ্রমিক কর্মচারির স্বপ্ন বাস্তবায়নে অন্যতম ভূমিকা থাকবে আমার। আমি সেই কাজটিই করে যাচ্ছি প্রতিমুহুর্তে । এবারের সম্মেলনে জাতীয় শ্রমিক লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক পদে নির্বাচিত হলে শ্রমিকদের অধিকার আদায় ও তাদের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করবো।

আপনার মতামত লিখুন :