মোরেলগঞ্জে পরিত্যক্ত ঝুঁকিপূর্ণ কয়েকটি ভবন যুগ যুগ ধরে পড়ে রয়েছে

প্রকাশিত : ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

শামীম আহসান মল্লিক, মোরেলগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে স্বাধীনতা পরবর্তী উপজেলার প্রশাসনিক এলাকায় একাধিক ঝুঁকিপূর্ণ ভবন পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। এসব ভবনগুলো প্রতিনিয়ত ধসে ধসে পড়ছে। ভেঙ্গে পড়ে প্রায়ই ছোট খাট দুর্ঘটনা ঘটছে। এসব অতিরিক্ত ঝুঁকিপূর্ণ ভবনগুলো দ্রুত অপসারন করা না হলে ঘটতে পারে বড় কোন দূর্ঘটনা।

জানা গেছে, উপজেলা পরিষদ চত্বরে ঢোকার মুখেই পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে আছে এককালের উপজেলা প্রশাসনের ব্যবহৃত পরিত্যক্ত বিশাল একাধিক ভবন। ভবনটির দরজা জানালা কালের ক্রমে বেহাত হয়ে গেছে। প্রতিটি কক্ষের রড,সিমেন্ট দৃশ্যমান। অনেক ভবনের ছাদও ভেঙ্গে পড়েছে। পলেস্তরা নেই বললেই চলে। এ ভবনটি দুই যুগ আগে পরিত্যক্ত ঘোষনা করা হয়েছে। পাশেই রয়েছে পরিত্যক্ত টিডিডিসি হল, দুটি খাদ্য গুদাম। কয়েকদিন আগেও এ ভবনের একটি কক্ষে রাখা হতো কৃষি দপ্তরের গাড়ি। কয়েকদিন আগে ছাদ ধসে পড়েছে কৃষি দপ্তরের ব্যবহৃত গাড়ি উপর। একই চত্বরে রয়েছে সবেচেয়ে বেশি ঝুঁকিপূর্ণ বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন(বিএডিসি) ঝুঁকিপূর্ণ ভবন। ভবনগুলো এখন রাতে-দিনে অনেকে প্রাকৃতি ডাকে সাড়া দিতে ব্যবহার করছে। রয়েছে গরু-ছাগলের মলমূত্র । উপজেলা প্রশাসনের প্রধান সড়কের পাশের এসব পরিত্যক্ত ভবনের ভিতরের দুর্গন্ধে পথচারিদের নাক চাপে চলতে হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, উপজেলা চত্তরের এসব অতি ঝুঁকিপূর্ণ পরিত্যক্ত ভবনগুলোর দ্রুত অপসারন করা হবে। সে বিষয়ে জেলা প্রশাসক মহোদয়কে অবহিত করা হয়েছে।
উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ এ্যাড. শাহ-ই আলম বাচ্চু বলেন, ইতোমধ্যে উপজেলা নির্বাহী অফিসার, ভাইস চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক মোজাম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাহিমা খানম সহ একটি টিম পরিত্যক্ত ভবনগুলোর অবস্থান পরিদর্শন করা হয়েছে। উপজেলা সমন্বয় সভায় বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এসব ঝুঁকিপূর্ণ অপসারনে অতি শীঘ্র অপসারন করার ব্যবস্থা করা হবে।
এসব অতিরিক্ত ঝুঁকিপূর্ণ ভবন দ্রæত অপসারন করা না হলে ঘটতে পারে বড় কোন দূর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে এলাকাবাসি জানায়।

আপনার মতামত লিখুন :