২৫ শর্তে সিলেটের বিনোদন কেন্দ্রগুলো খুলছে

প্রকাশিত : ১০ সেপ্টেম্বর ২০২০

করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে বন্ধ থাকা সিলেটের সকল বিনোদন কেন্দ্র খোলার অনুমতি দিয়েছে জেলা প্রশাসন।  ২৫ শর্তে দর্শনার্থীদের জন্য খুলে দেওয়া হচ্ছে এসব বিনোদন কেন্দ্র।

কোন বিনোদন কেন্দ্র যদি এসব শর্তাবলী অমান্য করে তবে ওই ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছেন সিলেট জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম।

জেলা প্রশাসনের দেয়া শর্তাবলীর মধ্যে রয়েছে- ধারণ ক্ষমতার অর্ধেক দর্শনার্থী প্রবেশ, প্রবেশ ও নির্গমনে পৃথক পথ, প্রতিটি রাইডে একমুখী চলাচল নিশ্চিত, রাইডে একটি করে আসন ফাঁকা রেখে আসন বিন্যাস, প্রবেশপথ ও অন্যান্য স্থানে ১ মিটার শারীরিক দূরত্ব বজায় নিশ্চিত, প্রবেশমুখে হাত ধোঁয়ার ব্যবস্থা, দর্শনার্থীদের ব্যাগ ও সাথে আনা সামগ্রী জীবাণুমুক্ত করা, প্রবেশপথে শরীরের তাপমাত্রা মাপার ব্যবস্থা এবং উপসর্গের দর্শনার্থী কিংবা কর্মচারীদের প্রবেশ নিষেধাজ্ঞা।

দর্শনার্থীদের মাস্ক পরিধান, মাস্ক না থাকলে বিনোদন কেন্দ্রের পক্ষ থেকে সরবরাহ করা, খাবার টেবিলসহ পানীয় প্রস্তুতের স্থানসমূহ ঘন ঘন স্যানিটাইজ করা, ওয়ানটাইম প্লেট-গ্লাস-চামচ ব্যবহার, বসার স্থানসহ সব স্থানে ঘন ঘন স্যানিটাইজ করা, আঙিনা জীবাণুমুক্ত করা, প্রতি রাইড শেষ হওয়ার পর জীবাণুনাশক প্রয়োগ, সচেতনতামূলক রেকর্ড বার্তা প্রচার, দৃশ্যমান একাধিক স্থানে ছবিযুক্ত স্বাস্থ্য সুরক্ষা বার্তা ঝুলিয়ে রাখা, যানবাহন জীবাণুমুক্ত করার ব্যবস্থা রাখা এবং ট্যুরিজম বোর্ড, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ কর্তৃক জারিকৃত নির্দেশনাবলী অনুসরণ করা।

করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে চলতি বছরের ১৮ মার্চ থেকে সারাদেশের সকল শিশুপার্ক, চিড়িয়াখানাসহ বিনোদন কেন্দ্রগুলো বন্ধ করে দেওয়া হয়।  এদিন থেকে সিলেট জেলারও সবকটি বিনোদন কেন্দ্র (পার্ক) দর্শনার্থীদের জন্য বন্ধ রয়েছে। এমতাবস্থায় দীর্ঘ ৬ মাস পর বিনোদন স্পটগুলো শর্ত সাপেক্ষে খোলার অনুমতি প্রদান করেছে জেলা প্রশাসন।  এ ঘোষণার পর বিনোদন কেন্দ্রগুলো খোলার প্রস্তুতি শুরু করেছেন কর্তৃপক্ষ।

এর মধ্যে বৃহস্পতিবার (১০ সেপ্টেম্বর) বঙ্গবন্ধু জাতীয় মহাসড়কের বিমানবন্দর বাইপাস সড়কের বিনোদন কেন্দ্র (শিশুপার্ক) অ্যাডভেঞ্চার ওয়ার্ল্ড পার্ক খুলছে বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপক আনোয়ার হোসেন।

তিনি জানান, মাস্ক ছাড়া কোন দর্শনার্থী পার্কে প্রবেশ করতে দেওয়া হবেনা।  দীর্ঘ ৬ মাস পর শর্তসাপেক্ষে পার্ক খোলার অনুমতি প্রদান করায় তিনি জেলা প্রশাসনকে ধন্যবাদও জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, করোনার কারণে বিনোদন কেন্দ্রগুলোর পাশাপাশি সিলেটের আবাসিক হোটেল, ক্লাব এবং কমিউনিটি সেন্টারগুলোও বন্ধ করা হয়।  অবশ্য, গত ৬ সেপ্টেম্বর শর্ত সাপেক্ষে সিলেটের সবকটি কমিউনিটি সেন্টার খোলার অনুমতি প্রদান করে জেলা প্রশাসন।  আর স্বাস্থ্যবিধি মেনে কিছু কিছু হোটেলও সীমিত আকারে খোলা রয়েছে কয়েক দিন ধরে।  খোলা রয়েছে রেস্টুরেন্ট আর ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও।

আপনার মতামত লিখুন :