লক্ষ্মীপুর রামগঞ্জে প্রেম করে বিয়ে, তিন মাস পর হত্যা

প্রকাশিত : ৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি:
লক্ষ্মীপুর রামগঞ্জে প্রেম করে বিয়ের তিন মাস পর লাকি আক্তার (২৫) নামের এক নববধূকে হত্যার অভিযোগে স্বামী মো. সবুজকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গতকাল দুপুরে সবুজকে লক্ষ্মীপুর আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এর আগে নিহত লাকির মা রঞ্জনি বেগম বাদী হয়ে সবুজের নামে রামগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন। নিহত লাকি রামগঞ্জ পৌরসভার বাঁশঘর এলাকার মৃত খোকন পাটওয়ারীর মেয়ে। ময়নাতদন্ত শেষে বিকেলে নিহতের মরদেহ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। অভিযুক্ত সবুজ পেশায় ট্রলি চালক। তিনি পৌরসভার পশ্চিম টামটা এলাকার দুলাল মিকারের ছেলে। পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, প্রেম করে তিন মাস আগে সবুজ লাকিকে বিয়ে করে। এরপর থেকে তারা পৌরসভার পশ্চিম আঙ্গারপাড়া এলাকায় একটি বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করে আসছেন।

সোমবার রাতে পৌনে ১২টার দিকে মুর্মূষ অবস্থায় লাকিকে তার স্বামীসহ আরও দুইজন নারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। তখন হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক লাকিকে মৃত ঘোষণা করেন। এসময় সঙ্গে আসা স্বামীসহ অন্যরা দ্রুত পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ হাসপাতালে যায়। পরে রাতেই অভিযান চালিয়ে রামগঞ্জ পৌরসভার রতনপুর এলাকা থেকে সবুজকে গ্রেপ্তার করা হয়। খবর পেয়ে রাতেই সহকারী পুলিশ সুপার (রায়পুর সার্কেল) স্পিনা রাণী প্রামানিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন বলে সাংবাদিকদের জানান। এসময় তিনি সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলেন। এ ব্যাপারে রামগঞ্জ থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মহসিন চৌধুরী গণমাধ্যম কর্মীদেরকে জানান, নিহতের গলায় দাগ ছিল। তার সুরুতহাল ও ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ দাফন করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পেলে বিস্তারিত জানা যাবে। অভিযুক্ত সবুজকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :