দেশের এক আইএসপি প্রতিষ্ঠানে সাইবার হামলা

প্রকাশিত : ৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের (বিসিসি) ফরেনসিক ল্যাব বাংলাদেশে সাইবার হামলার বিষয়ে টানা ৯ দিন তদন্ত করে একটি অন্তর্বর্তীকালীন প্রতিবেদন তৈরি করেছে। ওই প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। প্রতিবেদনটি সম্প্রতি সরকারের উচ্চপর্যায়ে পাঠানো হয়েছে।

প্রতিবেদন থেকে পাওয়া তথ্যে দেখা যায়, সাইবার বিশেষজ্ঞরা ম্যালওয়্যার ভাইরাসের বেশকিছু নমুনা সংগ্রহ করেছে। ভাইরাসটি কীভাবে শনাক্ত করতে হবে সে ধরনের বেশকিছু নমুনার তালিকাও দেয়া হয়েছে প্রতিবেদনে।

ওইসব নমুনা দেখলে সেগুলোতে কোনো ধরনের ক্লিক না করে ক্লিন বা অকেজো করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। কীভাবে এগুলো অকেজো করতে হবে তারও একটি গাইডলাইন রয়েছে এতে। এই প্রক্রিয়া অনুসরণ করে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর পাশাপাশি অন্যান্য সরকারি বেসরকারি সংস্থাগুলোও কাজ করছে।

এ প্রসঙ্গে কম্পিউটার ইনসিডেন্ড রেসপন্স টিমের (সার্ট) প্রকল্প পরিচালক তারেক বরকতউল্লাহ বলেন, একটি ইন্টারনেট কোম্পানির সার্ভারে ম্যালওয়্যার ভাইরাসটি হামলা চালিয়েছে বলে আমরা তথ্যপ্রমাণ পেয়েছি। এখন এটি ধীরে ধীরে ছড়াতে পারে। যে কারণে এখন আরও বেশি সতর্ক থাকতে হবে।

তিনি বলেন, এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। আমাদের সঙ্গে অনেকে যোগাযোগ করছে। তাদের প্রয়োজনীয় পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

তিনি জানিয়েছেন, এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে এরই মধ্যে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি এবং ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন আইএসপিএবিকে জানানো হয়েছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দেশের সামগ্রিক ইন্টারনেট ব্যবস্থায় সাইবার নিরাপত্তায় কিছু কিছু দুর্বলতা আছে। তাই বড় ঘটনা ঘটার আশঙ্কা একেবারে উড়িয়ে দেয়া যায় না। এ মুহূর্তে কঠোর সতর্কতার বিকল্প নেই। বিশেষ করে ব্যক্তিগত কম্পিউটার বা স্মার্টফোন ব্যবহারে সতর্ক থাকতে হবে।

এদিকে ভাইরাসটি পুরোপুরি অকার্যকর না হওয়া পর্যন্ত সর্বোচ্চ সতর্ক থাকতে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

আপনার মতামত লিখুন :