বেগমগঞ্জে মন্দিরে হামলার ঘটনায় জামায়াত, বিএনপি নেতাসহ গ্রেপ্তার আরও ১১

প্রকাশিত : ২৫ অক্টোবর ২০২১

দিদারুল আলম, নোয়াখালী প্রতিনিধি : নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী শ্রী শ্রী রাধাকৃষ্ণ গৌর নিত্যানন্দ বিগ্রহ (ইসকন) মন্দির, শ্রী শ্রী রাম ঠাকুর চন্দ্র মন্দির ও শ্রী শ্রী রাধামাধব জিউর মন্দিরসহ বিভিন্ন মন্দিরে হামলা ও সহিংসতার ঘটনায় আরও ১১জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে বিএনপি, জামায়াত, সেচ্ছাসেবক দল, যুবদল ও ছাত্রদলের কয়েকজন নেতা রয়েছে।

সোমবার দুপুরে পুলিশ সুপারের সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান জেলা পুলিশ সুপার মো. শহীদুল ইসলাম।

গ্রেপ্তাররা হচ্ছেন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-সভাপতি ফয়সাল ইনাম কমল (৩৯), বীজবাগ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও জামায়াত নেতা মো. হারুনুর রশিদ (৪৮), জেলা যুবদলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মো. রায়হান (৩৮), চরমটুয়া ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক ফয়সাল বারী চৌধুরী (৪৫), ছাত্রদলের সদস্য সচিব বেলায়েত হোসেন (২৬)। অপর গ্রেপ্তাররা হচ্ছেন, বেগমগঞ্জের মীরওয়ারিশপুরের আলাউদ্দিন (২৮), নরোত্তমপুরের ফজলুর করিম সুমন (৩২), চরহাজারীর মিন্টু (২৩), ছয়ানী টগবার পারভেজ হোসেন (২৯), দক্ষিণ পেয়ারাপুরের আব্দুল বারেক (৫৫) এবং হাজীপুরের আব্দুল বাকী শামীম (৪১)।

পুলিশ সুপার মো. শহীদুল ইসলাম জানান, রোববার রাত থেকে সোমবার ভোর পর্যন্ত জেলার বিভিন্নস্থানে গোয়েন্দা সহায়তায় পুলিশ ও ডিবি অভিযান চালিয়ে মন্দিরে হামলার সাথে বিভিন্নভাবে জড়িত আরও ১১জনকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে ফয়সাল ইনাম কমল ও হারুনুর রশিদ কুমিল্লার ঘটনার পর থেকে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে সাম্প্রদায়িক পোস্ট, গোপন বৈঠকসহ বিভিন্ন উসকানিমূলক কার্যক্রম করে আসছিল। এছাড়াও অপরদের ওইদিনের ধারণকৃত সিসিটিভি ফুটেজ দেখে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বেগমগঞ্জের ঘটনায় এ পর্যন্ত ১১টি মামলায় ১৩৫জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। যারমধ্যে এজাহারভুক্ত ৬৪জন আসামী রয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :