এসএসসি-৯৫ ব্যাচ অল বাংলাদেশ শিক্ষার্থীদের মহামিলন মেলায় আবেগাপ্লুত হাজারো বন্ধু

প্রকাশিত : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১

কামরুল ইসলাম দুলু. সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম)

মেতে উঠি আনন্দে ফিরে যাই শৈশবে। এই মূলমন্ত্রে দীক্ষিত হয়ে সারা বাংলাদেশ এসএসসি-৯৫ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের এক মহামিলন মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসএসসি পাশের দীর্ঘ ২৬ বছর পর এক বনভোজনের মাধ্যমে বন্ধুরা একত্রিত হন। ব্যস্ত জীবনে স্কুলের বন্ধুদের সঙ্গে দেখা হওয়াটা আজকাল তেমন হয়েই ওঠে না।

ঠিক সেই কথা মাথায় রেখে স্কুলের বন্ধুদের সঙ্গে যাতে একে অপরের দেখা হয়, ফেসবুকের মাধ্যমে সে সুযোগ সৃষ্টি করে দেন অল বাংলাদেশ এসএসসি-১৯৯৫ ব্যাচের  বন্ধুরা। আপনি বন্ধুর সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছেন কিন্তু তাকে চেনেন না। কিন্তু আপনি জানেন সে আপনার বন্ধু।

সেই বন্ধুর জন্য ছুটে এসেছেন শত মাইল দূর থেকে- এমনও হয় নাকি বলে যারা অবিশ্বাসের চোখে তাকাচ্ছেন তাদের জন্যই বলছি, এসএসসি ৯৫ অল বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরা গড়ে তুলেছে এমন বন্ধুত্বের মেলবন্ধন। আর সেই বন্ধুত্বের ডাকে সারা দিতেই দেশ-বিদেশের নানা প্রান্ত থেকে সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম ব্যবহার করে একত্র হয়েছেন হাজারো মানুষ। গত ২৬ বছরে এদের একেকজন নানা পেশায় চলে গেছেন। কেউ দেশে আছেন, কেউ বিদেশ আছেন।

 

শুক্রবার সকাল থেকে মীরসরাইস্থ আরশী নগর ফিউচার পার্কে দিনব্যাপী উক্ত মহা মিলন মেলার আয়োজন করা হয়। দীর্ঘদিন যোগাযোগ না থাকা বন্ধুরা একে অপরকে পেয়ে অনেকেই আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। খোঁজ নেন পরিবার-পরিজনের। অনেকের চেহারা চেনা চেনা লাগলেও পরিচয় জেনেই নিশ্চিত হই তিনিই সেই স্কুল বন্ধু।

এই দীর্ঘ ২৬ বছরে এসএসসি-৯৫ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের বিভিন্নজন নানা পেশায় চলে গেছেন। এদের মধ্যে অনেকে ডাক্তার, প্রকৌশলী, আইনজীবী, সাংবাদিক, সরকারি কর্মকর্তা, সামরিক ও বেসামরিক অফিসার, কেউবা আবার শিক্ষক কিংবা ব্যবসায়ী। কেউ বা আবার প্রবাসী।

কিন্তু বন্ধুত্বের বন্ধনে একসঙ্গে রব চিরজীবনে এ শ্লোগানে সবাই যেন এদিন একাকার হয়ে যান। পরিচয় সবার যেন একটা সেটা হলো আমরা স্কুল বন্ধু।আগামীতে আরও বড় পরিসরে মিলনমেলার পাশাপাশি অন্যান্য সামাজিক অনুষ্ঠানের আয়োজনের পরিকল্পনার কথা জানালেন গ্রুপের অ্যাডমিন শেখ জাহাঙ্গীর আলম।

আপনার মতামত লিখুন :