‘আ’লীগ সরকার ও সাত্তার ট্রাস্ট না থাকলে আমার মত মানুষ না খেয়ে থাকতে হতো’

প্রকাশিত : ১৭ জুন ২০২০

লক্ষীপুর প্রতিনিধি : ‘শেখ হাসিনা (আওয়ামীলীগ সরকার) ও অধ্যক্ষ এম এ সাত্তার ট্রাস্ট না থাকলে আমার মত মানুষের না খেয়ে থাকা লাগতো।’ চলমান করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে অসহায় হয়ে পড়া লক্ষীপুরের বড়ালীয়া গ্রামের ৭০ বছর বয়সী দৃষ্টি প্রতিবন্ধী নুরু শাহা ত্রাণ পেয়ে খুশিতে এমনটাই জানালেন।

মঙ্গলবার (৫ মে) লক্ষীপুর সদর উপজেলার বোয়ালীয়া, করইতোলা, বশিকপুর, পোদ্দারবাজার, দত্তপাড়া, দর্জিপাড়া, বালাইশপুর সহ ১০ টি গ্রামে ২ হাজার পরিবারের প্রত্যেককে ৫ কেজি চাল, ২ কেজি আলু, ১ কেজি ডাল, ১ কেজি পেঁয়াজ, ৫০০ গ্রাম লবণ, ৫০০ গ্রাম তেল ও ২টা সাবান বিতরণ করেন অধ্যক্ষ এম এ সাত্তার ট্রাস্ট।

ট্রাস্টের চেয়ারম্যান ও মোহাম্মদপুর থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি অধ্যক্ষ এম এ সাত্তারের হাতে খাদ্য সহায়তা পেয়ে এদিন স্বস্তিতে বাড়ি ফিরেছেন লকডাউনের কারণে অসহায় হয়ে পড়া এসব কর্মহীন, মধ্যবিত্ত, অসহায়, প্রতিবন্ধী, শ্রমিকরা।

উপজেলার বোয়ালীয়া গ্রামের ৭০ বছর বয়সী দৃষ্টি প্রতিবন্ধী নুরু সাহা খাদ্য সহায়তা পেয়ে খুশিতে প্রায় আত্মহারা হয়ে পড়েন। তিনি ওই গ্রামের মৃত নাজির হোসেনের ছেলে। নিজের অভিব্যক্তি প্রকাশে তিনি বলেন, অধ্যক্ষ এম এ সাত্তার ট্রাস্টের দেয়া প্রথম খাবার পেলাম।

জানতে চাইলে অধ্যক্ষ এম এ সাত্তার ট্রাস্টের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ কারিগরী শিক্ষক ফেডারেশনের সভাপতি অধ্যক্ষ এম এ সাত্তার বলেন, বর্তমান প্রেক্ষাপটে ঘরে বসে থাকা দরিদ্র, দিনমজুর ও কর্মহীন মানুষের মাঝে খাদ্য সহায়তা অব্যাহত রাখা হবে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় অধ্যক্ষ এমএ সাত্তার ট্রাস্ট অতিতের ন্যায় সাধারণ পাশে থাকবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মানবিক সহায়তার সাথে নি¤œআয় ও কর্মহীন মানুষের পাশে খাদ্য সহায়তা নিয়ে মাঠে আছি। ইতিমধ্যে ১ম দফায় ১০ হাজার মানুষের মাঝে খাদ্য সহায়তা বিতরণ করা হয়েছে। এসময় স্ব স্ব ইউনিয়নের জনপ্রতিনিধি ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত লিখুন :