সবজি কাটার ছুরি দিয়ে কুচিয়ে কুচিয়ে দিহানকে হত্যা করে আপন চাচী

প্রকাশিত : ২৭ এপ্রিল ২০২০

ফটিকছড়ি প্রতিনিধি: ফটিকছড়ির ৪ বছরের শিশু দিহানকে নির্মমভাবে হত্যা করেন নিজ বড় চাচী। ঘটনার পর সন্দেহজনক ভাবে চাচিকে আটক করা হলে রাতেই পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার কথা স্বীকার করেন তিনি। পারিবারিক শত্রুতার জের ধরে তাকে নির্মম ভাবে সবজি কাটার ছুরি দিয়ে কুচিয়ে কুচিয়ে হত্যা করা হয়।

পুলিশ জানায়, চাচি নিজ হাতে ছুরি দিয়ে অবুঝ এ শিশুকে ১৬ টি আঘাত করেন, সব রক্ত তিনি নিজ হাতে পানি দিয়ে পরিষ্কার করে বাচ্চাটিকে কলাপাতা মুড়িয়ে পাশের লাকড়ির ঘরে লুকিয়ে রাখেন।

ফটিকছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ বাবুল আক্তার বলেন, এ ঘটনা খুবই অমানবিক। এ ঘটনায় নিহত শিশুর মা জনি আক্তার বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করলে জড়িত চাচি রেশমা আক্তারকে (২৫) গ্রেফতার করা হয়। চাচীর স্বীকারোক্তিতে হত্যাকান্ডে ব্যবহ্নত ছুরি টি উদ্ধার করা হয়েছে। একটি সবজি কাটার ছুরি দিয়ে খুন করা হয় দিহানকে।

উল্লেখ্য, গতকাল ২৬ এপ্রিল দুপুর ১ টার দিকে উপজেলার পাইন্দং ইউনিয়নের দক্ষিণ পাইন্দং কালু বাপের একটি লাকড়ির ঘর থেকে নাড়িভুঁড়ি বের হওয়া অবস্থায় দিহানের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত দিহান পাইন্দং কালু বাপের বাড়ীর দিদারুল আলমের ছেলে।

আপনার মতামত লিখুন :