মিরসরাইতে ২য় কেউ সংক্রমিত হয়নি

প্রকাশিত : ২৫ এপ্রিল ২০২০

মিরসরাই (চট্টগ্রাম)প্রতিনিধি: চট্টগ্রামের এক মহিলার শরীরে করোনা ভাইরাস সনাক্তের পর গত সাত দিনে নতুন করে আর কেউ আক্রান্ত হয়নি। গত ১৮ সেপ্টেম্বর উক্ত মহিলার শরীরে করোনা ভাইরাস সনাক্ত হওয়ার পর তার সংস্পর্শে আসা পরিবারের আরো নয় সদস্যের নমুনা সংগ্রহ করে তা পরীক্ষার জন্য প্রেরণ করা হয় সাথে সাথে আতঙ্কিত হয়ে উঠে পুরো উপজেলা বসবাসকারীরা।

তবে স্বস্তির বিষয় হচ্ছে নমুনা সংগ্রহ করা ৯জনের কারো শরীরে করোনার ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি। রিপোর্ট নেগেটিভ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রুহুল আমিন। শুক্রবার (২৪ এপ্রিল) তাদের রিপোর্ট পাঠানো হয়েছে। এরা সবাই উপজেলার খৈয়াছড়া ইউনিয়নের নিজতালুক গ্রামের বাসিন্দা।

জানা গেছে, গত ১৮ এপ্রিল উপজেলার খৈয়াছরা ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের নীচতালুক গ্রামের মৌলভী সৈয়দুর রহমান বাড়ির একজন মহিলা বাসিন্দা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। চট্টগ্রাম সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) তার করোনা ভাইরাস ধরা পড়ে। রবিবার (১৯ এপ্রিল) সকালে ওই মহিলার সংস্পর্শে থাকা ৮জন ও এ্যাম্বুলেন্সের ড্রাইভারের নমুনা সংগ্রহ করে চট্টগ্রামের ফৌজদারহাটস্থ বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি)তে পাটিয়েছে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক টিম।

এরপর ২৪ এপ্রিল তাদের রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। ওই রোগীর ভাসুর মেজবাউল আলম বলেন, করোনায় আক্রান্ত আমার ছোট ভাইয়ের স্ত্রীর শারীরিক অবস্থা আগের চেয়ে অনেক ভালো। আর পরিবারের সকল সদস্যের রিপোর্ট নেগেটিভ আসায় আল্লাহর দরবারে শুকরিয়া জ্ঞাপন করছি। এটা নিয়ে খুবই চিন্তিত ছিলাম।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ রুহুল আমিন বলেন, আক্রান্ত ওই মহিলার বাড়ী সহ পাশ্ববর্তী ১টি বাড়ি লকডাউন করে দেওয়া হয়। । আজ কালকের মধ্যে লকডাউন তুলে নেয়া হবে। তিনি বলেন, এই মূহুর্তে সরকার নির্দেশিত নিয়মাবলী মেনে চলাই উত্তম। এতে সকলের মঙ্গল। সকল নাগরিকগনকে ঘরে থেকে এ সময় সহযোগিতার কথাও বলেন তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :