মিরসরাইয়ে বিয়ের প্রলোভনে যুবতীকে ধর্ষণের অভিযোগ, গ্রেফতার ১

প্রকাশিত : ২৪ এপ্রিল ২০২০

আশরাফ উদ্দিন, মিরসরাই (চট্টগ্রাম) : মিরসরাইয়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক যুবতীকে (৩০) একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত মো. সামছুদ্দিনকে গ্রেফতার করেছে জোরারগঞ্জ থানা পুলিশ। শুক্রবার (২৪এপ্রিল) বারইয়ারহাট পৌরসভার উত্তর সোনাপাহাড় গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

সে ওই এলাকার মো ফকির আহম্মদের ছেলে। ধর্ষণের শিকার যুবতী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, জায়গা জমি সংক্রান্ত অভিযোগ নিয়ে আসা দক্ষিণ সোনাপাহাড় গ্রামের ওই যুবতীর সাথে এক বছর পূর্বে জোরারগঞ্জ থানায় মো.সামছুদ্দিনের পরিচয় হয়। এরপর মোবাইলফোনে তার সাথে মো.সামছুদ্দিন সখ্যতা গড়ে তোলে। একপর্যায়ে সে বিয়ে করার প্রলোভন দেখিয়ে তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করে। এক সময় ওই যুবতী অন্তঃসত্তা হয়ে পড়লে সামছুদ্দিনকে বিয়ের জন্য চাপ দেয়।

কিন্তু তাকে বিয়ে না করে উল্টো ভয়ভীতি দেখিয়ে তার ভ্রণের গর্ভপাত ঘটায়। পরে বাধ্য হয়ে বিয়ের দাবি নিয়ে সামছুদ্দিনের বাড়িতে গেলে সে ও তার স্ত্রী তাকে (যুবতীকে) মারধর করে বের করে দেয়। এ বিষয়ে শুক্রবার (২৪ এপ্রিল) সকালে ওই যুবতী বাদী হয়ে জোরারগঞ্জ থানায় মো.সামছুদ্দিনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন।

জোরারগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মফিজ উদ্দিন ভূঁইয়া জানান, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ, ভ্রণ গর্ভপাত, মারধর ও ভয়ভীতি প্রদানের অপরাধে মোঃ সামছুদ্দিন নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। আটককৃত আসামীকে কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :