মধ্যরাতে থেমেছে প্রচারণা, বুধবার সিএন্ডএফ কর্মচারী ইউনিয়নের নির্বাচন

প্রকাশিত : ২৪ জানুয়ারি ২০২৩

আবু তাহের, চট্টগ্রাম ব্যুরো :

প্রায় একমাসের কাছাকাছি সময় ধরে তুমুল প্রচার প্রচারণা, গণসংযোগে মুখরিত চট্টগ্রাম বন্দর নগরীর বাণিজ্যিক এলাকা আগ্রাবাদে মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারী) যেন শুনশান নিরবতা নেমে এসেছে। ৭হাজার ২শ ভোটারের সংগঠন চট্টগ্রাম ক্লিয়ারিং এন্ড ফরওয়ার্ডিং এজেন্টস কর্মচারী ইউনিয়নের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনকে ঘিরে যে ঢামাঢোল বেজেছিলো সোমবার (২৩ জানুয়ারী) মধ্যরাত থেকে তা বন্ধ হয়ে গেছে। আনুষ্ঠানিক প্রচার প্রচারণা বন্ধ থাকায় আজ দিনভর প্রার্থী ও তাদের স্বজনরা ভোটারদের সাথে সরাসরি সাক্ষাৎ কিংবা ফোনে শেষ মনজয়ের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। বুধবার (২৫ জানুয়ারী) চট্টগ্রাম বন্দর রিপাবলিক ক্লাবে সকাল সাড়ে ৮টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে একটানা চলবে বিকাল ৫টা পর্যন্ত। নির্বাচনে ৭হাজার ১শ ৯৮জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

নির্বাচনে ২৮টি সম্পাদকীয় এবং ৭টি সদস্য পদসহ মোট ৩৫টি পদের বিপরীতে দুই প্যানেল থেকে ৭০ প্রার্থী এবং স্বতন্ত্র ৫জন প্রার্থী মিলে মোট ৭৫জন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন।

এদিকে নির্বাচন পরিচালনার জন্য গঠিত কমিশন সূত্রে জানা গেছে, সুষ্ঠু ও শৃঙ্খলাপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা সার্বিকভাবে নির্বাচনে সহযোগিতা করবেন। প্রতি বুথে ১ হাজার দুইশত করে ৬বুথে ভাগ করে ভোট গ্রহণ করা হবে। নির্বাচন কমিশন সদস্য, প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও পোলিং অফিসার এবং সদস্যরা আইডি কার্ড/বুকলেটসহ কেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবেন। ভোটার ছাড়া অন্য কারো ভোটকেন্দ্রে প্রবেশাধিকার নেই।

নির্বাচন কমিশনের চেয়ারম্যান মাহাবুব মিন্টু ও সদস্য সচিব নায়েবুল ইসলাম ফটিক সুষ্ঠু সুন্দর ও শৃঙ্খলাপূর্ণ নির্বাচনের লক্ষে সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

এদিকে নির্বাচনী প্রতিদ্বন্ধিতাকারী খোকন-জাকির পরিষদের এনায়েত উল্লাহ খোকন বলেন, শান্তি ও সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ইতোমধ্যে আমরা আমাদের প্রচার প্রচারণায় আমাদের অবস্থান তুলে ধরেছি। ভোটাররা আমাদেরকে ভোট দিয়ে বিপুল ভোটে বিজয়ী করবেন ইনশাল্লাহ। তিনি সবাইকে যথাসময়ে কেন্দ্রে উপস্থিত হয়ে নিজের ভোটাধিকার প্রয়োগের অনুরোধ জানিয়েছেন।

নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতাকারী মিল্টন-মোশারফ প্যানেল থেকে সভাপতি প্রার্থী খায়রুল বাশার মিল্টন বলেন, প্রচার প্রচারণা যেমন শান্তিপূর্ণ ও সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশে চলেছে, তেমনি ভোটগ্রহণও হবে শান্তিপূর্ণ। আমরা জয়ের ব্যাপারে আশাবাদি ইনশাল্লাহ।

নির্বাচন কমিশনের সদস্য সচিব নায়েবুল ইসলাম ফটিক বলেন, কমিশন নির্বাচন আয়োজনে সম্পূর্ণ প্রস্তুত। প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদেরকে আচরণবিধি সম্পর্কে অবহিত করা হয়েছে। নির্বাচনে কোনোরূপ প্রভাব বিস্তার কিংবা অনিয়মের চেষ্টা করলে তা আইনশৃঙ্খলাবাহিনী কঠোর হস্তে দমন করবে।

 

আপনার মতামত লিখুন :