নিজামপুর কলেজের ছাত্ররা উশৃঙ্খল বেপরোয়া হয়ে উঠছে

প্রকাশিত : ৫ ডিসেম্বর ২০২২

আশরাফ উদ্দিন, (চট্টগ্রাম) মিরসরাই:

দিন দিন উশৃঙ্খল আর ব্যাপরোয়া হয়ে উঠছে উত্তর চট্টগ্রামের ঐতিহাসিক সুনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মিরসরাইয়ের নিজামপুর সরকারী কলেজ ছাত্ররা। এরা মানেনা কারো শাসন কিংবা বারণ। চুরি,ছিনতাই, চাদাবাজি, মারামারি,দলাদলি,ভাঙ্গচুর মুহর্তেই করতে পারে যে কোন কিছু। উশৃঙ্খল ছাত্রদের ভয়ে আতঙ্কে সহজ সরল ছাত্র ছাত্রীরা থাকে তটস্থ। যে কোন ইস্যুতেই সাধারণ ছাত্রদের উপর আক্রমন করে রাজনৈতিক ছাত্ররা। সাধারণ ছাত্রীদের যৌন হেনস্থা নিত্য বেপার। সাধারণ ছাত্র ছাত্রীরা বিভিন্ন ভাবে উশৃঙ্খল ও রাজনৈতিক ছাত্রদের দ্বারা হেনস্তা হলেও প্রকাশ্যে আসেনা কোন ঘটনা। এতে অনেক ছাত্র ছাত্রী কলেজ পরিবর্তন করতে বাধ্য হয় অথবা পড়ালিখা ছেড়ে দেয় । শিক্ষকদের ও নাই এসব ছাত্রদের কাছে ইজ্জত সম্মান ও নিরাপত্তা। নিজামপুর কলেজের সাবেক দুই অধ্যক্ষকেও ছাত্রদের হাতে লাঞ্চিত হয়ে কলেজ ছাড়তে হয়েছে।
তেমনি সোমবার (৫নভেম্বর) ঘটেগেল দুই ঘটনা। প্রথম ঘটনায় নিজামপুর কলেজ বিএনসিসির একটি টিম চট্টগ্রামের মহাজনহাট আর্মী ব্যাটেলিয়ান ক্যাম্পে ট্রেইনিং করতে যাওয়ার সময় প্রান্তিক পরিবহনের একটি বাসের সামনের গøাসে ঢিল ছুড়ে মারে। এতে ওই বাসের গøাস ফেটে গিয়ে একটি বৃদ্ধ যাত্রী আহত হন। একই দিন নিজামপুর কলেজের মানবিক ও ব্যাবসায়িক শাখার এইসএসসি পরীক্ষার্থীরা মিরসরাই ড়িগ্রী কলেজে কৃষি শিক্ষার পরীক্ষা শেষে ফেরার পথে মহাসড়কে ব্যারিকেট দিয়ে দূরপাল্লার গাড়ি গুলিকে বাধ্যকরে তাদের গাড়িতে নিতে। এসময় মহাসড়কে সাময়িক জ্যামের সৃষ্টি হয়। ছাত্ররা গাড়ি গুলির প্রতি মার মুখি আচরণ করে ও মার্সা পরিবহনের একটি গাড়ির দরজায় ছাত্রদের উপযুপরি লাথি মারতে দেখা যায়। গত ২৪ নভেম্বর এক প্রবাসীর কাছ থেকে দিন দুপুরে টাকা ও দিনার ছিনতাই করে পালানোর সময় ৩ ছাত্রকে পাবলিক আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেয়।
নিজামপুর কলেজের অধ্যক্ষ রফিক উদ্দিনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, যাত্রী আহতের বিষয়ে আমি অভিযুক্ত ছাত্রের অভিভাবকে তলব করেছি। ওই ছাত্রকে কলেজ থেকে বহিষ্কারের সিদ্যান্ত নিয়েছি। ছিনতাইয়ের ঘটনায় অভিযুক্ত ছাত্রদের পক্ষে একটি রাজনৈতিক দলের ছাত্র নেতারা তাদের জন্য প্রত্যয়ন পত্র নিতে আসলে আমি তাদের ফিরিয়ে দিয়ে বলেছি কোন ছিনতাইকারীকে আমার কলেজের ছাত্র ঘোষণ দিয়ে প্রত্যয়ন পত্র দিতে পারবো না। আমি অধ্যক্ষের দায়িত্বে আসার পর থেকে যতটুকু পারছি নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করছি। কিন্তু কলেজ ক্যাম্পাসের বাইরের বিষয়গুলি আমি নিয়ন্ত্রণ করতে পারি না।

আপনার মতামত লিখুন :