ঘর পাচ্ছেন সাফের সেরা গোলরক্ষক রূপনার পরিবার

প্রকাশিত : ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২

ভোরের দর্পণ ডেস্কঃ

সাফ নারী ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের সেরা গোল রক্ষক রূপনা চাকমার পরিবারকে ঘর দেওয়া হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে রূপনা চাকমার পরিবার ঘর করে দেওয়ার মৌখিক নির্দেশনা এসেছে বলেও জানিয়েছেন রাঙ্গামাটির জেলা প্রশাসক। ইতোমধ্যে নানিয়ারচর ইউএনও ও উপজেলা প্রকৌশলী রূপনা চাকমার বাড়িতে গিয়েছেন সরকারের নির্দেশনা বাস্তবায়নে।

রাঙ্গামাটির নানিয়ারচর উপজেলার ঘিলাছড়ি ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড ভূঁইয়াদাম গ্রামে রূপনা চাকমার বাড়ি। পরিবারের চার ভাই-বোনের মধ্যে রূপনা চাকমা সবার ছোট। পরিবারের একমাত্র অভিভাবক রূপনা চাকমার মা। ঘরবেলা থেকেই প্রতিকূল পরিবেশে তাদের বেড়ে ওঠা। নেই ভালো ঘরবাড়ি, পারিবারিক সচ্ছলতা। নানান প্রতিকূলতা ও সমাজের টিপ্পনীকে ডিঙিয়ে যখন দেশের জন্য সাফ জিতিয়ে নিলেন, সেরা গোল রক্ষক হলেন- তখন সকলের মুখেমুখে প্রশংসার জুড়ে নেই, অথচ রূপনাদের বেড়ে উঠা ও এই পর্যায়ের আসা পথ কখনোই মসৃণ ছিল না।

তবে আশার বাণী শোনালেন জেলা প্রশাসক। বুধবার বিকালে রূপনা চাকমার পরিবারকে ঘর বরাদ্দ দেওয়ার বিষয়টি জানিয়ে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, সকালে রূপনা চাকমার পরিবারকে ঘর করে দেওয়ার জন্য নির্দেশনা এসেছে। আমি নানিয়ারচর ইউএনওকে দ্রুত কাজ করার জন্য বলেছি। ইউএনও এবং এলজিইডির উপজেলা প্রকৌশলী এখন ঘটনাস্থলে রয়েছেন।

এর আগে মঙ্গলবার বিকালে সাফ চ্যাম্পিয়ন নারী ফুটবল দলের সেরা গোলরক্ষক রূপনা চাকমার বাড়ির পর ঋতুপর্ণা চাকমার বাড়িতেও যান জেলা প্রশাসক। তিনি দুজনের পরিবারকেই দেড় লাখ টাকা হারে ৩ লাখ টাকা দিয়েছেন। এসময় তার সাথে জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. সাইফুল ইসলাম, জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক খেলোয়াড় ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি বরুণ বিকাশ দেওয়ান, জেলা মহিলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক নিরূপা দেওয়ানসহ আরো অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, সোমবার সাফ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জেতায় বিজয়ী দলের খাগড়াছড়ির তিন খেলোয়াড় খেলোয়াড় ও এক কোচের জন্য আর্থিক প্রণোদনা ঘোষণা করেন খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসন। খাগড়াছড়ির মনিকা চাকমা, আনাই মগিনি ও আনুচিং মগিনি এবং দলের সহকারী কোচ তৃষ্ণা চাকমাকে ১ লাখ টাকা করে প্রণোদনা দেয় প্রশাসন। এরমধ্যে আনাই ও আনুচিং যমজ বোন।

আপনার মতামত লিখুন :