বাংলাদেশ জলবায়ু ঝুঁকি মোকাবিলায় শ্রেষ্ঠ শিক্ষক: বান কি মুন

প্রকাশিত : ৯ সেপ্টেম্বর ২০২০

জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবেলায় বাংলাদেশের গৃহীত পদক্ষেপের ভূঁয়সী প্রশংসা করেছেন বিশ্ব নেতারা। এক্ষেত্রে বাংলাদেশকে শ্রেষ্ঠ শিক্ষক মনে করেন জাতিসংঘের সাবেক মহাসচিব এবং জিসিএ চেয়ারম্যান বান কি মুন। জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবেলায় বাংলাদেশ থেকেই শিক্ষা নিতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

মঙ্গলবার বিকেলে জলবায়ু বিষয়ক সংগঠন গ্লোবাল সেন্টার অন এডাপটেশন (জিসিএ)এর বাংলাদেশ আঞ্চলিক অফিসের উদ্বোধন শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

এ সময় বান কি মুন বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ঝুঁকি মোকাবিলায় গ্লোবাল সেন্টার অন অ্যাডাপ্টেশন কাজ করবে। বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় অভিযোজনের ক্ষেত্রে ব্যাপক ভূমিকা রেখেছে। সে কারণেই দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশেই জিসিএ অফিস খোলা হয়েছে। এর মধ্যে দিয়ে আমরা জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় আরো এগিয়ে যাবে। আর আমি এ বিষয়ে খুবই আশাবাদী। এসময় জলবায়ু পরিবর্তন ঝুঁকি মোকাবিলায় বাংলাদেশ শ্রেষ্ঠ শিক্ষক বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি বলেন, সারা পৃথিবী যখন জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতি নিয়ে আলোচনা করছে, তখন বাংলাদেশ দুর্যোগের মোকাবিলায় শক্ত হাতে দাঁড়িয়েছে। সর্বশেষ করোনা ভাইরাস মহামারীর মধ্যে আসা ঘূর্ণিঝড় আম্পানের সময় মানুষজনকে বিপুল সংখ্যায় আশ্রয়কেন্দ্রে
নিয়ে আসাটাও ছিল প্রশংসনীয়।

এসময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন বলেন, জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় বাংলাদেশ অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে। এক্ষেত্রে বাংলাদেশের সক্ষমতাও বাড়ছে। যে কারণে প্রাকৃতিক দুর্যোগে বাংলাদেশে প্রাণহানির সংখ্যা এখন খুবই কম। বাংলাদেশে জিসিএ অফিস খোলায় আন্তর্জাতিক সহযোগিতা ক্ষেত্রে একটি মাইলস্টোন হিসেবে কাজ করবে।

আপনার মতামত লিখুন :