শনিবারও থেমে থেমে বৃষ্টি হতে পারে, আকাশ থাকবে মেঘলা

প্রকাশিত : ২৪ অক্টোবর ২০২০

ভোরের দর্পণ অনলাইন:

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট গভীর নিম্নচাপের প্রভাবে শনিবার (২৪ অক্টোবর) ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বিকেল পর্যন্ত বৃষ্টি হতে পারে বলে আবহাওয়ার পূর্বাভাসের বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর। 

শনিবার (২৪ অক্টোবর) সকাল থেকে রাজধানীতে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। আবহাওয়া অধিদফতর বলছে, রাজধানীতে দুপুর পর্যন্ত বৃষ্টি হতে পারে। তবে সেই বৃষ্টি হবে থেমে থেমে, আকাশ বেশির ভাগ সময় থাকবে মেঘলা।

বিজ্ঞপ্তিতে আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, চট্টগ্রাম, মোংলা, পায়রা সমুদ্রবন্দর ও কক্সবাজারে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্কসংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া চট্টগ্রাম, রাজশাহী, রংপুর, ময়মনসিংহ, খুলনা, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের বেশির ভাগ জায়গায় দমকা ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে।

আবহাওয়া অধিদফতর আরও জানিয়েছে, ফরিদপুর মাদারীপুর অঞ্চল তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থিত স্থল নিম্নচাপটি আরও উত্তর দিকে সরে গেছে। শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) মধ্যরাতে এটি স্থল নিম্নচাপ আকারে মানিকগঞ্জ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছিল। এটি আরও উত্তর ও উত্তর পূর্ব দিকে অগ্রসর ও দুর্বল হতে পারে।

আবহাওয়া অধিদফতরের আবহাওয়াবিদ আবদুল মান্নান শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) গণমাধ্যমকে বলেন, এ মাসের বাকি সময় তো বটেই, আগামী নভেম্বর পর্যন্ত এ ধরনের নিম্নচাপ আরও তৈরি হতে পারে। আর অক্টোবর-নভেম্বর মাসে ঘূর্ণিঝড়ের আশঙ্কা রয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, নিম্নচাপটির সঙ্গে মৌসুমি বায়ুও বাংলাদেশ থেকে বিদায় নিতে শুরু করেছে। এরই মধ্যে মৌসুমি বায়ু রংপুর ও রাজশাহী বিভাগ থেকে বিদায় নিয়েছে। মৌসুমি বায়ু বিদায় নেওয়ার পর থেকেই তাপমাত্রা দ্রুত কমতে থাকবে। শুরু হবে শীতের আমেজ। নভেম্বরের মাঝামাঝি সময় থেকে শীত জেঁকে আসবে। তবে অন্য বছরগুলোর তুলনায় এবারের শীতে বৃষ্টি কিছুটা বেশি হবে।

এদিকে টানা তিন দিনের বর্ষণে বরগুনাসহ উপকূলীয় অঞ্চলের মানুষের জীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। দেশের বিভিন্ন জেলায় ভারি বৃষ্টিতে ক্ষতি হয়েছে আগাম শীতকালীন সবজির। এর আগে গত কয়েক মাসে ভারি বৃষ্টি ও বন্যায় সবজি উৎপাদন কমেছে। কৃষকরা আশায় ছিলেন, রোদ ঝলমলে আবহাওয়া পেলেই মাঠ থেকে আগাম সবজি তুলে আয় করা যাবে। কিন্তু সে আশা ভেঙে গেল এই নিম্নচাপে।

আবহাওয়া অধিদফতরের বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, স্থল নিম্নচাপের প্রভাবে সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, ঝালকাঠি, পিরোজপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, লক্ষ্মীপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় জলোচ্ছ্বাস হতে পারে। এ ছাড়া উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে তাদের গভীর সাগরে বিচরণ না করতে বলা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :